বড়ো সাফল্য, স্তন ক্যানসার সারাতে অব্যর্থ দাওয়াই রক্তচন্দন গাছের বীজ, করে দেখালেন বিহারের গবেষক

স্নাতকোওর ড্রিগিধারী বিহারের ছেলে বিবেক আখৌরি মগধ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গবেষণা করছিলেন রক্তচন্দন গাছের বীজ দিয়ে ক্যান্সারের উপশম করা যায় কিনা। এবং তার গবেষণায় তিনি সাফল্য পেয়েছেন তাঁর মতে রক্ত চন্দন গাছের বীজ ক্যান্সার এর পক্ষে সহায়ক হতে পারে। সম্প্রতি তিনি তাঁর গবেষণাপত্রটি সেজ পাবলিকেশন্স সংস্থার কাছে জমা করেছে। আখৌরি তার গবেষণা সম্পর্কে বলেছেন, তিনি প্রথমে কয়েকটি ইঁদুরের দেহে ক্যানসারের কোষ প্রয়োগ করেছিলেন। এরফলে সেই ইঁদুরেরগুলির দেহে টিউমার উৎপন্ন হয়। তারমধ্যে কয়েকটি ইঁদুরের দেহে গবেষক আখৌরি চন্দন গাছের গুড়ির প্রধান অংশকে কাজে লাগায় বিগত পাঁচ সপ্তাহ ধরে। প্রতিদিন তিনি ওই ইঁদুরগুলিকে রক্তচন্দন গাছের বীজ খাওয়াতেন।

এবং তিনি দেখতে পান টিউমারগুলি প্রায় ৪৯.৫ হারে কমে গিয়েছে। এবং যেসব ইঁদুর গুলিকে রক্তচন্দনের বীজ খাওয়ানো হয়নি তারা আস্তে আস্তে মারা গিয়েছে।কেন তিনি পাঁচ সপ্তাহ এই বীজ প্রয়োগ করলেন, এই বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি উওরে বলেন, রক্ত চন্দন গাছের বীজ প্রয়োগ করার ফলে ইঁদুরগুলির দেহে টিউমারের মাপ কমে যাছিল।এর থেকেই আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে আমার গবেষণা সফল হয়েছে তাই আর সময় নষ্ট করার কোন মানেই হয়না।

তবে এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে কিনা সেই বিষয়ে আমি কোন গবেষণা করিনি। সেটি সম্পূর্ণ নির্ভর করছে যে সংস্হা ওষুধ তৈরি করবেন তাদের উপর। গবেষক আখৌরির গবেষনায় অধ্যাপক মিনা কুমারীর মতে, এর আগেও চিনে একটি গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছিল ,রক্ত চন্দন গাছের বীজে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা ক্যান্সারের ক্ষেত্রে খুবই কার্যকরী। বিশেষত মহিলাদের স্তন, যৌনাঙ্গ এবং উভয়ের লিভারের পক্ষে।