জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে চীনে চলছে হত্যালীলা, খুন করা হচ্ছে লক্ষ লক্ষ শিশুকন্যা, অভিযোগ আমেরিকার

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য শিশুকন্যাদের খুন করছে চীন! ১৯৯৫ সাল থেকে এ পর্যন্ত লক্ষ লক্ষ শিশু কন্যা প্রাণ হারিয়েছে চীনের ষড়যন্ত্রে! চীনের বিরুদ্ধে সম্প্রতি এমনই গুরুতর অভিযোগ আনলেন মার্কিন শিক্ষাসচিব বেস্টি ডেভোস। সম্প্রতি,রাষ্ট্রসঙ্ঘের তরফ থেকে আয়োজিত একটি ভার্চুয়াল বৈঠকে অংশগ্রহণ করে চীনের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিলেন বেস্টি ডেভোস। রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে চীনের এই কার্যকলাপের বিরুদ্ধে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৯৫ সালের পয়লা অক্টোবর চিনের রাজধানী বেজিংয়ে চতুর্থ বিশ্ব নারী সম্মেলন অনুষ্ঠান পালিত হয়েছিল। গত বৃহস্পতিবার সেই সম্মেলনের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে রাষ্ট্র সংঘের তরফ থেকে এই ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করা হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস, চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং, জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মর্কেল ও আমেরিকার শিক্ষাসচিব বেস্টি ডেভোস-সহ আরো বিভিন্ন দেশের শীর্ষ নেতৃত্বরা।

এই বৈঠকে বক্তব্য রাখতে গিয়ে চীনের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের অভিযোগ তুললেন মার্কিন শিক্ষা সচিব। চীনের কমিউনিস্ট পার্টির বিরুদ্ধে তার বিস্ফোরক মন্তব্য, ১৯৯৫ সাল থেকেই লক্ষ লক্ষ শিশু কন্যাকে নিষ্ঠুর ভাবে খুন করে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে চীন। তিনি এও বলেছেন, এই কাজে তাদের মদত দিচ্ছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিভিন্ন সংস্থা। চিনা প্রশাসনের তরফ থেকে অবশ্য মার্কিন শিক্ষা সচিবের এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।

এ দিনের বৈঠকে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ডেভোস জানান, শুধু চীন নয়। ভেনেজুয়েলা, কিউবা এবং ইরানেও মহিলা নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। উল্লেখ্য,চীনে বসবাসকারী উইঘুর সম্প্রদায়ের মহিলাদের উপর দীর্ঘদিন ধরেই অত্যাচার চালানোর অভিযোগ উঠেছে চীনের বিরুদ্ধে। যৌন নির্যাতন চালানোর পাশাপাশি উইঘুর সম্প্রদায়ের মহিলাদের চীনের জোর করে গর্ভপাত করানো হয় বলেও অভিযোগ উঠেছিল। এবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে চীনের বিরুদ্ধে মহিলা নির্যাতনের অভিযোগ তুলে সরব হলেন মার্কিন শিক্ষা সচিব।