শিলিগুড়িতে বিজেপির মিছিলকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা, মিছিল আটকে দিল পুলিশ

শিলিগুড়িতে বিজেপির যুব মোর্চা ও মহিলা মোর্চার ডাকা মিছিলকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা। এদিন মিছিলটি শুরু হয় শিলিগুড়িরর কাঞ্চনজঙ্ঘা স্টেডিয়ামের সামনে সুইমিং পুলের সামনে থেকে। এরপর মিছিলটি হাসমিচকের কাছে পৌঁছাতে মিছিল আটকাতে আগে থেকেই মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। এবং তার সাথে সাথে ব্যারিকেড। এরপর মিছিলটি হাসপাতাল মোড় পাড় করতেই প্রথম ব্যারিকেড ভেঙে মিছিলকারীরা দ্বিতীয় ব্যারিকেড ভাঙতে গেলেই শুরু হয় পুলিশ ও বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তি। এরপর মিছিল থেকে বেশ কিছু বিজেপি কর্মীকে আটক করে পুলিশ।

এই মিছিলে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল,রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু,বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ সহ বিজেপির শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলার নেতা কর্মীরা। এরপর হাসমিচক মোড়ে বিজেপি মহিলা মোর্চার সদস্যদের নিয়ে রাস্তায় বসে পড়েন অগ্নিমিত্রা পাল। এবং রাস্তাতেই তাদের মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। যদিও মিছিলের পুলিশি অনুমতি না থাকায় মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। এর পাশাপাশি প্রচুর মহিলা পুলিশও মোতায়েন করা হয়। এই বিষয়ে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন যে রাজ্যজুড়ে আইনসৃঙ্খলার অবনতি হয়েছে। নারী নির্যাতন বেড়েছে। পশ্চিমবঙ্গে একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রী হওয়া সত্বেও।

এখানে রাজ্যে যিনি নারী ও শিশু অধিকার কমিশনের দায়িত্বে আছেন তিনি নির্যাতিতার সম্পর্কে মৃত বা আত্মহত্যা কারিনীর সম্পর্কে যা কুরুচিকর মন্তব্য করেছেন। তার প্রতিবাদ আমাদের বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পালের নেতৃত্ব মিছিল হচ্ছে। এবং আমরা মিছিলের জন্য পুলিশি অনুমতি চেয়েছিলাম কিন্তু দেয়নি। এবং জনগণ প্রয়োজনে ব্যারিকেড ভেঙে দিবে। নেহাত কোভিড করোনা আছে বলে আমরা হয়তো আমরা কিছু সংঘত আচরণ করছি। গনতন্ত্রের আসল ঢেউ কোভিডের পর পুলিশ বুঝতে পারবে।