স্নাতক-স্নাতকোত্তর স্টুডেন্টদের নিয়ে বড়ো আপডেট, অক্টোবরেই হবে পরীক্ষা

বহু জল্পনা-কল্পনার করার পর সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছেন,কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় গুলিকে চলতি বছরেই তাদের স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা দিতে হবে। আগের নম্বর বিচার করে পাশ করানো যাবে না।অক্টোবর মাসেই সমস্ত পরীক্ষা নিতে হবে কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় গুলিকে। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় গত সোমবার ইউসিজি সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠকের পর সমস্ত কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপাচার্য দের জানিয়ে দিয়েছেন এ কথা। সেইমতো রাজ্যজুড়ে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে।সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছেন যদি ৩০ শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে রাজ্য স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের পরীক্ষা না নিতে পারে তাহলে সেই পরীক্ষা পিছানো যাবে।

কিন্তু পরীক্ষা পিছানোর প্রসঙ্গ নিয়ে রাজ্যকে আলোচনা করতে হবে ইউসিজি সঙ্গে।সুপ্রিম কোর্টের রায়কে তুলে ধরে গত ২ র সেপ্টেম্বর ইউনিভার্সিটি গ্রান্ট কমিশন কে রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দপ্তর চিঠি পাঠিয়ে ছিল।রাজ্যের তরফ থেকে চিঠিতে জানানো হয়েছে যে,রাজ্যের সমস্ত কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়া হবে আগামী অক্টোবর মাসে।যেহেতু সেপ্টেম্বর মাসে এই রাজ্যে পরীক্ষা নেওয়ার মতো সে রকম পরিস্থিতি তৈরি হয়নি তাই অক্টোবর মাসে পরীক্ষা নিতে হবে।

এই ক্ষেত্রে ইউজিসিকে জানানোর পাশাপাশি অনুমতি নেওয়ার জন্য চিঠি দিয়েছে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তর।ইতিমধ্যেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় অক্টোবর মাসে যে পরীক্ষা নেবে তাই ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন। অফ লাইন নয়, মূলত অনলাইনে ওপেন বুক এক্সামিনেশন পদ্ধতিতেই পরীক্ষা নেওয়া হবে। পরীক্ষার সূচি কলকাতা এবং বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়গুলির তরফ থেকে খুব শীঘ্রই ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

ইতিমধ্যেই ইউসিজির অনুমতি পাওয়া নিয়ে বিভিন্ন অধ্যাপক সংগঠন সরব হয়েছেন। ইউসিজি ৩০ শে সেপ্টেম্বর এর মধ্যেই রাজ্যগুলিকে পরীক্ষা নিতে বলেছিল, সেখানে অক্টোবর মাসে পরীক্ষা নেওয়ার অনুমতি না পাওয়া গেলে ফের পরীক্ষা নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে বলে মনে করছেন অধ্যাপক সংগঠনগুলি।ইতিমধ্যেই ইউসিজি র প্রত্যেক পদক্ষেপে প্রতি নজর রাখছে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তর। ফের পরীক্ষা নিয়ে কোনো রকম জটিলতা চাইছেনা রাজ্যের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সংগঠন। সব মিলিয়ে ইউসিজি কি উত্তর দেয় রাজ্যকে সেদিকেই তাকিয়ে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তর।