চিতাতে আগুন দিতেই উঠে হাঁটা শুরু করলেন মৃতা, তারপর যা হল

চিতাতে আগুন দিতেই উঠে হাঁটা শুরু করলেন মৃতা

এযেন ভুতুড়ে সিনেমার কোনো প্লট। চোখের সামনে এমন দৃশ্য যদি আপনি কোনোদিন দেখেন তাহলে আপনার হার্টবিট বাড়তে বাধ্য। পরিবারের প্রিয়জনের মরদেহ নিয়ে শ্মশানে নিয়ে চলেছেন বাড়ির লোকেরা। শ্মশানে চিতা সাজানো হয়েছে, মৃতদেহ চিতায় উঠিয়ে আগুন দেওয়ার তোড়জোড় শুরু হয়েছে, এমন সময় ঘটলো আশ্চর্য ঘটনা।

চিতার উপর বসে পড়লো মরদেহ। উঠে বসে উপস্হিত সকলের সামনে বিন্দাস গল্প করছেন, সবার হালচাল জিজ্ঞাসা করছেন। এই অদ্ভুত কান্ড ঘটেছে কর্ণাটকের বেলাগাভী জেলার মুচন্ডী গ্রামে। এই ঘটনায় বেশ ভয় পেয়ে যান ওই মৃতার পরিবারের লোকেরা। যার মরদেহ চিতায় ওঠানো হয়েছিল তার নাম মালু চৌগুলে। তিনি ওই গ্রামের বাসিন্দা।

বয়স জনিত কারণে বেশ কয়েকদিন ধরেই তিনি বেশ অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন চিকিৎসার কারণে। কিন্ত পরিবারের অভিযোগ হাসপাতালের পক্ষ থেকে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। এরপরেই বাড়ির লোকেরা তাকে নিয়ে শ্মশানের উদ্দেশ্যে রওনা হন ও তার শেষকৃত্য সম্পন্ন করার জন্য তোড়জোড় শুরু করেন। তখনই এমন ঘটনায় হতচকিত হয়ে পড়েন উপস্হিত সকলে।

সমস্তরকম এক্সক্লুসিভ খবর পেতে লাইক করুন

ওই বৃদ্ধা আরামে চিতা থেকে নেমে হেটে বাড়ি ফিরে আসেন। এরপরে ওই বৃদ্ধার পরিবারের লোকেরা হাসপাতালে এসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দায় এড়িয়ে যায় ও বলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় এই মহিলার মৃত্যু হয়নি। এরপরে চলে অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগের পালা। তবে বাড়ির সদস্য যে বেঁচে আছেন সে ব্যাপারে খুশি পরিবারের সদস্যরা।