অভিষেকের সভায় অনুপস্থিত, নতুন করে জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন শাসক দলের আরো এক সাংসদ

রবিবার কুলতলিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে আয়োজিত সভায় অনুপস্থিত রইলেন জয়নগরের সাংসদ প্রতিমা মণ্ডল৷ এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। বিশেষত জয়নগরের মধ্যেই কুলতলিতে তৃণমূলীয় যুবনেতার সভা আয়োজিত হলো, অথচ ওই এলাকার তৃণমূল সাংসদ সভায় এলেন না! এতেই রাজনৈতিক মহলে বিভিন্ন তরজা চলছে।

কেন অনুপস্থিত রইলেন তিনি এই সভায়? খোদ প্রতিমা মন্ডল নিজেই এই প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। দলের আচরণে ক্ষুব্ধ হয়েই তিনি সভায় অনুপস্থিত ছিলেন বলে জানিয়েছেন। নিজে সভায় অনুপস্থিত থাকা প্রসঙ্গে সমস্ত দায়ভার তিনি দক্ষিণ চব্বিশ পরগণায় তৃণমূলের যুব সভাপতি শওকত মোল্লার উপর চাপিয়ে দিয়েছেন। তার অভিযোগ, তাকে আমন্ত্রণই জানানো হয়নি!

স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেছেন, সবার আমন্ত্রণ পত্রে তার নাম নেই! এতেই বেজায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন জয়নগরের সাংসদ। তার দাবি, সাংসদ হিসেবে তাকে ন্যূনতম সম্মানটুকুও দেওয়া হয় নি। এ প্রসঙ্গে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণায় তৃণমূলের যুব সভাপতি শওকত মোল্লার নাম উল্লেখ করে তার অভিযোগ, উনি ওনার এলাকার কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতেই জয়নগরের সাংসদকে আমন্ত্রণ জানান না!

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে দলবদলের ইস্যু এখন বেশ প্রাসঙ্গিক। দলত্যাগীরা সকলেই রাজ্য শাসকদলের বিরুদ্ধে নিজ নিজ ক্ষোভ উগরে বিরোধী শিবিরে নাম লেখাচ্ছেন। এমতাবস্থায় জয়নগরের সাংসদের এই প্রতিবাদও কার্যত তৃণমূলের সঙ্গে তার দূরত্ব বৃদ্ধির আভাস দিচ্ছে। প্রতিমা মন্ডলও আগামী দিনে অন্যান্যদের মতোই গেরুয়া শিবিরের অন্তর্ভুক্ত হবেন কিনা, সে সম্পর্কে জোর প্রশ্ন উঠছে।