আ’বা’র “নজরবন্দি” অ’নু’ব্র’ত, ভো’টে’র আ’গে ক’ড়া প’দ’ক্ষে’প নি’র্বা’চ’ন ক’মি’শ’নে’র

আগামী বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ২৯শে এপ্রিল রাজ্যজুড়ে যে শেষ দফার নির্বাচন চলবে সেখানে বীরভূমেরও বিধানসভা আসনের ভোট নেওয়া হবে। বীরভূমে যাতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট সম্পন্ন হয় সেই উদ্দেশ্যে এক অভিনব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল নির্বাচন কমিশন। কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুসারে ভোটের দিন সম্পূর্ণ নজরবন্দি হয়ে থাকবেন বীরভূমে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

কমিশনের তরফ থেকে প্রকাশিত নির্দেশিকা অনুসারে আজ বিকেল ৫টা থেকে আগামী শুক্রবার সকাল ৭টা পর্যন্ত নজরবন্দি থাকবেন অনুব্রত মণ্ডল। বীরভূমের দোর্দণ্ডপ্রতাপ জেলা সভাপতির উপর সর্বদা নজর রাখা হবে। তার প্রতিটি গতিবিধির উপর নজর থাকবে। তার প্রতিটি গতিবিধি রেকর্ড করে রাখা হবে ভিডিওগ্রাফির মাধ্যমে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর সদস্যরাও তার সঙ্গে থাকবেন।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি প্রচার সভায় অংশগ্রহণ করে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন, অনুব্রত মণ্ডলকে হয়তো অচিরেই নির্বাচন কমিশন নজরবন্দি করবে। তার সেই আশঙ্কা সত্য প্রমাণিত হলো। তবে এই প্রথমবার নয়। এর আগেও ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এবং ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময় অনুব্রত মণ্ডলকে নজর বন্দি করে রাখা হয়েছিল।

অনুব্রত মণ্ডলের পুরনো নথি খতিয়ে দেখেই নাকি এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। বীরভূমের ১১ টি আসনের ভোট যাতে সুষ্ঠুভাবে এবং শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়, অনুব্রত মণ্ডল যাতে কোনোভাবেই কারচুপি বা ভোট প্রভাবিত না করতে পারেন সেই উদ্দেশ্যে কড়া মনোভাব পোষণ করছে কমিশন।