পনিরকে তাজা রাখতে ব্যবহার করা হচ্ছে শৌচালয়ের জল, রাগে গজগজ করছে শিয়ালদহ স্টেশনের যাত্রীরা

বিগত প্রায় এক বছর ধরেই করোনার প্রকোপে ধুঁকছে বিশ্ব। ভারতের করোনা পরিস্থিতিও এখনো স্বাভাবিক হয়নি। বর্তমান পরিস্থিতিতে আরো সর্তকতা অবলম্বন প্রয়োজন। তবে দিন যতই এগোচ্ছে করোনা নিয়ে মানুষের সর্তকতা আরো কমছে। মানুষের অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপনের অভ্যেসই ক্রমাগত মৃত্যুফাঁদ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। এরই মধ্যে আবার শিয়ালদহ স্টেশনের পনির বাজারকে কেন্দ্র করে সরগরম হয়ে উঠলো স্টেশন চত্বর।

শিয়ালদহের মতো গুরুত্বপূর্ণ এবং ব্যস্ত স্টেশনের পনির বাজার বসাকে কেন্দ্র করে যাত্রীদের মধ্যে স্বভাবতই বেশ ক্ষোভ রয়েছে। রোজ বিকেলে হলদিরাম স্টলের সামনে বসে এই বাজার। এরফলে যাত্রীদের যাতায়াতে অত্যন্ত অসুবিধা হয়। এইবার স্টেশন সংলগ্ন শৌচালয়ের জল ব্যবহার করে পনির সতেজ রাখার প্রচেষ্টাকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার হয়ে উঠলো স্টেশন চত্বর।

শৌচালয়ের জল ব্যবহার করেই পনিরের মতো খাদ্য সামগ্রী সতেজ রাখার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। সেই পনির কিনতেই আবার ভিড় উপচে পড়ছে স্টেশন চত্বরে। ঘটনাটি হাতেনাতে ধরে ফেলেছেন যাত্রীরা। বিষয়টি স্টেশন কর্তৃপক্ষের নজরেও এনেছেন তারা। তবে পনির ব্যবসায়ীদের দাবি, আরপিএফের থেকে মিলছে ছাড়। যার ফলে চূড়ান্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশেই খাদ্যসামগ্রীর দেদার ব্যবসা চলছে।

প্রসঙ্গত ট্রেনে কিংবা স্টেশনে এইভাবে পনিরের মতো খাদ্য সামগ্রী আনা-নেওয়া কিংবা বেচাকেনা করা বেআইনি। তবুও কিছু অসাধু ব্যবসায়ী আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। যাত্রীদের অভিযোগ পুলিশের নজর এড়াতে ট্রেনের শৌচালয়েই পনিরের ট্রে মজুত করে রাখা হচ্ছে। যার ফলে তারা শৌচালয় ব্যবহারও করতে পারছেন না। দীর্ঘদিন ধরেই এই অভিযোগ জানিয়ে আসছেন তারা। তবে তাতে লাভ কিছুই হচ্ছে না।