ভোটের আগে রেশন ডিলারদের বিরাট সুবিধা মুখ্যমন্ত্রীর, দেওয়া হলো বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাপক ছাড়

আর মাত্র কিছু দিনের অপেক্ষা। তারপরেই আসতে চলেছে বিধানসভা ভোট। বিধানসভা নির্বাচনের আগে একে অপরকে টেক্কা দেবার জন্য কোন সুযোগ ছাড়ছেন না কেউই। তাই ভোটের কিছুদিন আগে রেশন ডিলার দের জন্য বড় খবর নিয়ে এলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।ডিলার দের লাইসেন্স পুনর্নবীকরণ থেকে শুরু করে আবেদনের জন্য কার্যনির্বাহী মূলধন, সব কিছুতেই ছাড় দিয়ে দিলেন তিনি। এমনকি ডিলার কর্মরত অবস্থায় মারা গেলে তার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা করলেন তিনি।

সোমবার উত্তরবঙ্গ সফরে যাওয়ার আগে অন্নে অনন্যা বাংলায়, যোগ দিতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি বলেন যে, শুধুমাত্র চিকিৎসক এবং পুলিশকর্মীরা নয়, যে সমস্ত মানুষেরা অসময়ে মানুষদের মুখে অন্ন তুলে দিয়েছিলেন তাঁদের ও যোধ্যা বলা যায়। এই যোদ্ধাদের পাশে সরকার সারা জীবন থাকবে।

রেশন ডিলার দের জন্য মূলত তিনটি ঘোষণা করতে শোনা যায় মুখ্যমন্ত্রী কে।খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এর উদ্দেশ্য করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে, লাইসেন্স পুনর্নবীকরণ যেটা করা হয়, সেটি একবছরের জায়গায় তিন বছর করে দিতে হবে। তাহলে ওদের অনেকটাই সুবিধে হয়।

এরপর মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে, দ্বিতীয় হলো,নতুন ডিলারশিপ লাইসেন্স আবেদনের জন্য কার্যনির্বাহী মূলধন ৫ লক্ষ টাকা থেকে কমিয়ে দু লক্ষ টাকা করে দেওয়া হল। করোনা সম্পূর্ণভাবে নির্মূল হয়ে গেলে এই সুযোগ আর আপনারা পাবেন না। তাই এখন এই সুযোগ আপনারা নিয়ে নিন। সমাজের জন্য আপনারাও সমান ভাবে কাজ করেছেন।

তিন নম্বর হলো, যেহেতু প্রথম সারিতে দাঁড়িয়ে আপনারা কাজ করেছেন,তাই কর্মরত অবস্থায় কেউ যদি মারা যান তাহলে সরকার তাকে ২ লক্ষ টাকা দেবে। এইদিন মঞ্চ থেকে কেন্দ্র কে আক্রমণ করতে ছাড়েনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কেন্দ্রকে আক্রমণ করে তিনি বলেন যে,কেন্দ্র উত্তর প্রদেশ এবং অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে চাল কিনে ছিল। পশ্চিমবঙ্গ থেকে ওরা কিছুই কেনে না। আমরা ৪৫ লক্ষ মেট্রিক টন চাল কিনেছিলাম। লোকে যখন বলে রেশনের চাল খুব ভালো তখন শুনতে সকলেরই ভালো লাগে। আর যখন বলে খারাপ তখন কষ্ট হয়।