বিশ্বের সবথেকে ঠান্ডা গ্রাম, যেখানে তাপমাত্রা সর্বদাই থাকে মাইনাস ৭১ ডিগ্রির নীচে

শীতকাল পড়লেই আমরা সবাই যেন দুশ্চিন্তায় পড়ে যাই এত ঠান্ডায় কিভাবে কাজ করব। তার থেকেও বড় দুশ্চিন্তার বিষয় হলো শীতকাল পড়লে নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যেমন কমপ্রায় সকলেরই গা ,হাত, পা ফেটে যাওয়া, গাল ফেটে যাওয়া এবং চুলে খুশকি হওয়ার সমস্যা আরো কত কি হয়েই থাকে। আমরা হয়তো অনেকেই জানি না পৃথিবীতে এমন একটি গ্রাম রয়েছে যেখানে সারা বছর শীত বিরাজমান করে।

রাশিয়ায় অবস্থিত ওয়ামিয়াকন গ্রামে সারা বছরই শীতকাল বিরাজ করে সেখানে শীতকালে তাপমাত্রা থাকে – 71 ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং জানুয়ারী নাগাদ তাপমাত্রা থাকে -50 ডিগ্রি সেলসিয়াস। গ্রামের মোট 500জন বাসিন্দা রয়েছে যারা অতি কষ্টের মধ্যে দিয়ে নিজেদের জীবন যাপন করছে। এই গ্রামে একটিমাত্র স্কুল রয়েছে যেখানে বাচ্চারা পড়াশোনা করে কিন্তু খুব ঠান্ডা পড়লে সেই স্কুলটিও বন্ধ হয়ে যায়।

এখানকার বাসিন্দারা পশুপালন করে নিজেদের জীবিকা নির্বাহ করে। অতিরিক্ত ঠান্ডার ফলে এখানে চাষাবাদ করা সম্ভব হয়না। তাই এখানকার মানুষেরা হরিণ পালন এবং মাছ ধরার মতো পেশায় নিযুক্ত থাকে এবং খাদ্য হিসাবে তারা বলগা হরিণ খেয়ে থাকে। ওই গ্রামে কেউ মারা গেলে কবর দেওয়ার জন্য জায়গা খুঁজে পাওয়া যায় না কারন সমস্ত স্হানটি বরফে ঢাকা। এজন্য খুবই অসুবিধা হয় শেষ কৃতকর্মের কাজ সম্পন্ন করতে। এছাড়াও গাড়ি চালানোর দিক থেকে খুবই অসুবিধা হয় বরফ এর কারনে।

তাতে কি হয়েছে তারা প্রকৃতির সাথে মানিয়ে গুছিয়ে নিয়ে ভালো ভাবে জীবন যাপন করছে, এই বিষয়গুলোকে কোন সমস্যা বলে মনে হয় না। তাদের এই কষ্টের জীবনের কথা শুনলে মনে হয় আমরাই অনেক ভালো আছি। একটিমাএ বিষয় শিক্ষনীয় যে, শীতকালে মাত্র 10 12 ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় আমাদের কাবু হওয়া একদমই উচিত নয়।