OMG, শুধুমাত্র ৮৭ ঘন্টায় বিশ্বের ৭ টি মহাদেশ ঘুরে এলেন তরুণী, গিনেজ বুকে উঠলো নাম

এ যেন অনেকটা কল্প-বিজ্ঞান কাহিনী লেখক জুল ভার্নের বিখ্যাত গল্প “অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ইন এইট্টি ডেজ” এর বাস্তবচিত্র। সেই সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে ট্রেন, জাহাজ, পদব্রজে এমনকি হাতির পিঠে চড়ে সাড়া দুনিয়া ঘুরতে ফিলিয়াস ফগের সময় লেগেছিল পাক্কা আশি দিন। কিন্তু যুগ বদলিয়েছে। যুগের সঙ্গে সঙ্গে বদলিয়েছে পরিষেবা।উন্নত প্রযুক্তির দৌলতে আজ যেকোনো অসম্ভবকে সম্ভব করে তোলা যায়। তাই তো আজকের দিনে বিশ্বের সাতটি মহাদেশ পরিভ্রমণ করতে সময় লাগে মাত্র সাড়ে তিন দিন।

হ্যাঁ, সংযুক্ত আরব আমিরশাহির এক যুবতী খাওলা এইরোমেইথি সম্প্রতি এমন অসম্ভব কার্যকেই সম্ভব করে দেখালেন। তার সঙ্গে সঙ্গেই অবশ্য বিশ্ব রেকর্ডটিকেও নিজের ঝুলিতে ভরে নিলেন। কারণ সারা পৃথিবীর সাতটি মহাদেশ ঘুরতে তার সময় লেগেছে মাত্র ৮৭ ঘণ্টা। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসেই তিনি তার বিশ্বসফর সম্পন্ন করেছেন। গত বুধবার গ্রিনিজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে তিনি তার নাম তুলেছেন।

সারা বিশ্বের মোট ২০৮টি দেশ ঘুরতে তার সময় লেগেছে মাত্র ৩ দিন ১৪ ঘণ্টা ৪৬ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড। তার আগে এত কম সময়ের মধ্যে কেউ এমন অনন্য নজির গড়তে পারেননি। সূত্রের খবর, গত ১৩ই ফেব্রুয়ারী খাওলা সিডনিতে তার বিশ্ব পরিভ্রমন শেষ করেন। তখন অবশ্য বিশ্বে করোনার প্রাদুর্ভাব তেমন ভাবে ছড়িয়ে পড়ে নি। তাই খাওলাও তার সফর সুষ্ঠু ভাবেই সম্পন্ন করতে পেরেছেন।

কেমন ছিল তার এই অভিজ্ঞতা? তিনি জানালেন, তার এই সফর কিন্তু বেশ কঠিন ছিল। শুধুমাত্র সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতেই দুশোরও বেশি দেশ রয়েছে। তিনি আরও জানালেন, এই স্বল্প সময়ের মধ্যে এতগুলি দেশ পরিভ্রমণের জন্য তাকে বারবার বিমান বদল করতে হচ্ছিল। সফরের মাঝে অনেক সময় এখানেই থেমে গিয়ে বাড়ি ফিরে যেতে মন চেয়েছে তার। কিন্তু দমে যাননি খাওলা। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের প্রতি প্রবল আকর্ষণ অনুভব করেন খাওলা। তাই তো শত বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে খাওলা আজ বিশ্ব রেকর্ড গড়তে সমর্থ হয়েছেন।