সৌদি এখন বিপদমুক্ত, সামরিক সরঞ্জাম সরাতে ব্যস্ত আমেরিকা

গোটা বিশ্ব জুড়ে করোনা আতঙ্ক। গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে, বাড়ছে মৃত্যু। সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি আমেরিকার। এই পরস্থিতিতে গোপন সূত্রের বরাতে মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানায়, বৃহস্পতিবার সৌদির তেল স্থাপনা থেকে অন্তত ৪ টি প্যাট্রিয়ট সার্ফেস-টু-এয়ার মিসাইল ব্যাটারি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এগুলোর সঙ্গে দায়িত্বরত কয়েক ডজন সেনা কর্মকর্তাকে অন্য জায়গায় মোতায়েন করা হবে।

মার্কিন যুদ্ধবিমানের ২ টি স্কোয়াড্রন আরব ছেড়েছে ইতিমধ্যেই। পেন্টাগনের উপসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিন নৌবাহিনীর উপস্থিতিও সীমিত করার পরিকল্পনা রয়েছে। তেহরান যুক্তরাষ্ট্রের জন্য আপাতত তাৎক্ষণিক হুমকি নয় বলে মনে করায় মার্কিন কর্তৃপক্ষ এমন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। তবে এই বিষয়ে সৌদি কতৃপক্ষ এখনও কোনো মন্তব্য করেনি।

মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, গত জানুয়ারিতে ইরানি কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেমানিকে ড্রোন হামলায় হত্যার পাশাপাশি করোনাভাইরাস মহামারি ইরানকে অনেকটাই দুর্বল করে দিয়েছে। এই কারণে সামরিক সরঞ্জামগুলো অন্য গুরুত্বপূর্ণ কাজে মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পেন্টাগন। চিনা সামরিক বাহিনীর প্রভাব বৃদ্ধি ঠেকানোর দিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন তাঁরা। করোনা মহামারির ফলে তেলের চাহিদা কমে যাওয়ায় তেলের উৎপাদন কমানো নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে সৌদির মূল্যযুদ্ধ হয় এবং এই কারণে তেলের দামে ভয়াবহ পতন ঘটে।

এর প্রভাবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ গোটা মার্কিন প্রশাসনই রয়েছে ব্যাপক চাপের মুখে, কারণ মার্কিন তেল কোম্পানিই দেউলিয়া হওয়ার পথে। রয়টার্সের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত এপ্রিলে ট্রাম্প সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে বলেছেন, তেল রপ্তানিকারক দেশগুলো উৎপাদন না কমালে আরব থেকে সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে আইন প্রণয়ন করা থেকে সংসদ সদস্যদের ঠেকানোর তার ক্ষমতা থাকবে না।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন