মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার দোরগোড়ায় জো বিডেন, খুশির হাওয়া পাকিস্তানে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মসনদ থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সরিয়ে যদি ক্ষমতায় আসেন ডেমোক্র্যাট পার্টির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন, তাহলে কি তা ভারতের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে? ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারতের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিবেশী রাষ্ট্র পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সর্বদাই ভারতকে সমর্থন করে এসেছেন। কিন্তু এবারে জো বাইডেন যদি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হয়ে বসেন তাহলে তিনি ভারত না পাকিস্তান, কোন পক্ষকে সমর্থন করবেন?

এ রকমই একাধিক প্রশ্ন ঘুরছে কূটনৈতিক মহলে। আর এই প্রশ্ন ওঠার যথাযথ কারণও রয়েছে। বর্তমানে, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পেছনে ফেলে মার্কিন মসনদের দিকে ধীরে ধীরে এগোচ্ছেন জো বাইডেন। আর হয়তো কয়েক ঘন্টার মধ্যেই মার্কিন মুলুকের দায়িত্বভার গিয়ে পড়বে তার উপর। আর বাইডেনের এই সাফল্যে কিন্তু বেশ খুশি পাকিস্তান। কারণ ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন কিন্তু বরাবরই পাকিস্তানের অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অপরপক্ষে অতীত দিনে জো বাইডেনের সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক কিন্তু বেশ ভালো ছিল। যার ফলস্বরূপ ২০০৮ সালে পাকিস্তানের তরফ থেকে সে রাষ্ট্রের দ্বিতীয় সাধারণ নাগরিক হিসেবে “হিলাল-ই-পাকিস্তান” সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন বাইডেন। এর থেকে বেশ স্পষ্ট, পাকিস্তানের সঙ্গে বাইডেনের সম্পর্ক কিন্তু বেশ গভীর। যা পরবর্তী ক্ষেত্রে ভারতের জন্য বেশ চাপের হয়ে দাঁড়াতে পারে।

উল্লেখ্য, এর আগে ডেমোক্রেট পার্টি’র সদস্য জো বাইডেন কিন্তু পাকিস্তানের জন্য প্রায়ই ১.৫ বিলিয়ান নন-মিলিটারি সৈন্য প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেছিলেন। বাইডেনের এই সমর্থন পেয়ে পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি আসিফ আলি জারদারি বাইডেনকে প্রতি উত্তরে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন। কূটনৈতিক মহলের আশঙ্কা, আমেরিকায় ডেমোক্র্যাট পার্টি ক্ষমতায় এলে পাকিস্তানের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পুরনো সখ্যতা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠবে। যার ফল ভুগতে হতে পারে ভারতকে।