হায়দ্রাবাদে ভয়ঙ্কর বৃষ্টিতে মানুষ সহ গাড়ি ভেসে গেলো জলের তোড়ে, দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া নেই কোনো উপায়

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে হায়দ্রাবাদের অবস্থা খুবই শোচনীয়, সব জায়গা জলে জলাকার। মানুষ গৃহবন্দী অবস্থায়, কারণ রাস্তা ঘাট, বাড়ি ঘর সমস্ত কিছুই প্রায় জলের তলায়। আর জলের তোড়ে ভেসে যাচ্ছে বড় বড় গাড়ি, জন্তু জানোয়ার এমনকি মানুষজন। একেবারে জলের তোড় যেনো সমস্ত কিছু উপড়ে নিয়ে পরিষ্কার করে চলে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে এই ভয়ঙ্কর বন্যার কারণে ২০ জনের ঊপরে মানুষ মারা গেছে। সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে সেটা দেখে গা শিউড়ে ওঠার মতো।

কারণ চোখের সামনে এক জল জ্যান্ত মানুষ একেবারে ভেসে গেলো জলের তোড়ে, বাচার জন্য আর্তনাদ করতে থাকলেও এগিয়ে গেলো না কেউ।দেখা যাচ্ছিল একজন লোক তার শেষ কল করেছিল তার বন্ধুকে যে তিনি এখন কেমন অবস্থায় আছেন। তার সেই শেষ ১ মিনিট ৪৪ সেকেন্ড কলের পর ডিস্কানেক্ট হয়ে যায়, তারপরেই তার দেহ পাওয়া যায় পরের দিন।
জলের তোড়ে ভেসে আসা গাড়ির মধ্যেই ছিলেন সেই ব্যাক্তি। আর সেই গাড়ি একটি গাছের গুড়ির মধ্যেই আটকে ছিল যা দেখে আরও আর্তনাদ করতে থাকে সেই ব্যাক্তি।


আর তার পরেই সে শেষ চেষ্টা করে তার বন্ধুকে ফোন করে সেই ভয়ঙ্কর জলের তোড় থেকে বেঁচে ফেরার।ব্যাক্তিটির নাম ছিল ভেঙ্কেটেশ গাউড, তিনি জানাচ্ছিলেন আমার গাড়ি জলের ভরে যাচ্ছে হয়ত আর কিছুক্ষণের জন্যই আছি, তাই আমাকে বাচান, এর পরিবর্তে রিপ্লাই আসে আপনি আপনার সামনের গাছ বা ওয়াল ধরে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করুন।

কিন্তু এর পরিবর্তে সেই ব্যাক্তি জানায় আমি দেখতে পারলেও উপায় নেই, কারণ আমি যদি সেই দেওয়াল ধরার চেষ্টা করি তাহলে হয়ত আমি জলের তোড়ে ভেসে যাবো। আর এদিকে যে গাছটি আমার গাড়িকে আটকে ধরে আছে সেটাও হয়ত আর বেশীক্ষণ থাকতে পারবে না। এর পরে তার বন্ধু জানায় এমন ভাববেন না, এমন কিছুই হবে না। কিন্তু তার কিছুক্ষণ পরেই ফোন কল ডিসকানেক্ট হয়ে যায় আর পরে সেই ব্যাক্তির দেহ খুজে পাওয়া যায়।।