কালীপুজোয় বাজি না ফাটানোর আর্জি মুখ্যমন্ত্রীর

ফাইল ছবি

রাজস্থানে ইতিমধ্যে বাজি পড়ানোর ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে, তেমন ভাবে বিভিন্ন রাজ্য সেই পথেই হাঁটছে। এবার পশ্চিমবঙ্গ সরকারও সেই পথেই হাটতে চলেছে। ইতিমধ্যে কলকাতা হাইকোর্টে বাজি পোড়ানোর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা হয়ে গেছে। এবার রাজ্যের মুখ্যসচীব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছে, এখন বর্তমানে কোভিড পরিস্থিতির কারণে রোগীদের অবস্থা অনেকটাই খারাপ। আর এর মধ্যে বাজি পোরানো বন্ধ রাখার আর্জি করা হচ্ছে রাজ্য বাসীর কাছে। এই নিয়ে খোদ মুখ্যমন্ত্রী আর্জি জানিয়েছেন।

শেষে আরও বলেছেন একেবারেই দূর্গাপূজার মতোই কালীপূজাতেও কোনোভাবেই বিসর্জনের শোভাযাত্রা বের করা যাবে না। আসলে আজ মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী নবান্নে রাজ্যের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করে আরস এখানেই কালীপূজো নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রাজ্য পুলিশের ডিজি থেকে শুরু করে, স্বরাষ্ট্রসচিব, মুখ্য সচীব, ও পুলিশ কমিশনার সবাই উপস্থইত ছিলেন সেখানে। আর সেখানেই প্রধানমন্ত্রী বাজি না পোড়ানোর আর্জি জানিয়েছে রাজ্য বাসীর কাছে।

যে যে সতর্কতা অবলম্বন করা দরকার। সেই সব গুলোকে মানতেই হবে যার মধ্যে মাস্ক পরা, স্যানিটাইজ করা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। সাথে আরও জানান, আসলে রাজ্যবাসী দূর্গাপূজাতে ঠাকুর দর্শনে বের হয়েছিল কিন্তু তাও রাজ্যের করোনা সংক্রমণ কমছে, ও মৃত্যুর হার কমছে মানুষ সুস্থ হয়ে উঠছে। তাই রাজ্য বাসীকে সাহস জুগিয়ে আত্মবিশ্বাসী করে তুলতে চাইছে রাজ্য সরকার।

এবার কালীপূজাতেও তেমন ভাবে সাহায্য চেয়েছে মানুষের কাছে। শেষে মুখ্যসচীব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানায় যে, আসলে হাইকোর্টের তরফ থেকে তো নিষিদ্ধ বাজি ফাটানো বন্ধ, সাথে মানুষ যাতে কোনো বাজিই না ফাটায় সেই আর্জি করা হচ্ছে। করোনা রোগীদের বাজির ধোয়ায় এক মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে, তাদের শ্বাসকষ্ট আরও বেড়ে যেতে পারে। তাই সবাই যেনো বিনা বাজিতেই উৎসব পালন করে।