২০২১ জুলাইয়ের মধ্যে ২২-২৫ কোটি দেশবাসীকে ভ্যা’কসিন দেওয়া হবে, আশার কথা শোনালো কেন্দ্র

দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। দেশবাসী এখন অধীর আগ্রহে ভ্যাকসিনের অপেক্ষায় দিন গুনছেন। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দাবি, চলতি বছরে ভ্যাকসিন মেলার কোনো সম্ভাবনা নেই। আগামী বছরের গোড়ার দিকে মিলবে ভ্যাকসিন। তবে ভ্যাকসিন নিয়ে আশার কথা শোনালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানালেন। তিনি জানালেন, আগামী বছরের জুলাই মাসের মধ্যেই দেশের ২২-২৫ কোটি মানুষকে টিকা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগোচ্ছে কেন্দ্র।

রবিবার, এক নেটিজেনের প্রশ্নের জবাবে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, অন্যান্য দেশের মতো ভারতীয় করোনাভাইরাসের ট্রায়ালের প্রক্রিয়া যুদ্ধকালীন গতিতে সম্পন্ন করা হচ্ছে। এজন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে একটি বিশেষ বিশেষজ্ঞ কমিটিও গঠন করা হয়েছে। তিনি জানালেন, দেশের ২২ থেকে ২৫ কোটি মানুষের শরীরে প্রয়োগ করার জন্য আগামী বছরের জুলাই মাসের মধ্যেই অন্ততপক্ষে ৪০০-৫০০ মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানালেন, ভ্যাকসিনের উৎপাদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে দেশবাসীর মধ্যে তা বিতরণের ব্যবস্থা করবে কেন্দ্র। তার জন্য এখন থেকেই কেন্দ্রের তরফ থেকে একটি বিশেষ তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে। ভ্যাকসিন আবিষ্কৃত হওয়ার পর কারা সেই ভ্যাকসিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন, সেই সংক্রান্ত তালিকাই তৈরি করছে কেন্দ্রীয় সরকার। এ বিষয়ে প্রত্যেক রাজ্যকে তথ্য প্রদান করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানালেন, ভ্যাকসিনের অগ্রাধিকার পাওয়ার তালিকা প্রস্তুত করবে রাজ্য। প্রতিটি রাজ্যের কাছ থেকে কোল্ড চেইন সংক্রান্ত তথ্য নেবে কেন্দ্র। তিনি আরো জানালেন, দেশের করোনা মহামারীর মোকাবিলা করতে বিশ্ব ব্যাঙ্ক-সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়েছে কেন্দ্র। উল্লেখ্য, ভারতে বর্তমানে তিনটি ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চলছে। প্রতিটি ভ্যাকসিনই ট্রায়ালের চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।