পেশ হতে চলেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল! একনজরে দেশের বিভিন্ন রাজ্যগুলি লোকসভার পরিস্থিতি

পেশ হতে চলেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল!

আজ লোকসভায় পেশ হতে চলেছে নাগরিকত্ব বিল। যার ফলে উত্তাল হতে পারে লোকসভা। আজ সোমবার নাগরিকত্ব বিল পেশ হতে চলেছে লোকসভায়, কিন্তু সেই বিলের ফলে যে ঝামেলার সঞ্চার হবে তা আগে থেকেই ঠাহোর করা যাচ্ছে বলে অনেকের ধারণা। আগের অধিবেশনেই এই বিল পেশ করা হয়েছিল, কিন্তু সময় কম থাকার কারণে তা করা সম্ভব হয় নি।

কারণ এই বিল পেশ করা হয়েছিল ভোটের আগে, আর তখন লোকোসভার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় তা করা সম্ভব হয় নি। তাই এবার ফের এই শীতকালীন অধিবেশনে এই বিল পেশ করা হবে। আর সেই দিন আজকেই। গতসপ্তাহে মন্ত্রী সভা এই বিলের অনুমোদন দিয়ে দিয়েছিল। এবার সেটা লোকসভায় হওয়ার পালা। জানা গেছে গেরুয়া শিবির তাদের সব সাংসদদের উপস্থিত বাধ্যতামূলক করেছে।

এই নিয়ে মানুষের মনে এখন অনেক প্রশ্নও জেগেছে। কারণ এন আর সি মানুষের মনে ভয়ের সঞ্চার করেছে। কিন্তু এই নিয়ে সংখ্যা লঘু বিষয়ক মন্ত্রী বলেছে, এতে ভয় পাওয়ার কিছুই নেই। এতে কারো নাগরিকত্ব যাবে না। এতে শুধু আমাদের প্রতিবেশী দেশের নাগরিকরা ভারতের তরফ থেকে নাগরিকত্ব পাবে।

এই নিয়ে এখন অনেক জায়গাতেই ঝামেলা চলছে, বিশেষ করে উত্তর পুর্ব ভারতে। তাদের দাবি এই নাগরিকত্ব বিল তাদের জায়গায় যেনো লাগু না হয়। তাহলে জনজাতি বিলুপ্ত হয়ে যাবে। এদিকে অসমের বিজেপি নেতা জানিয়েছে, আমাদের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ এই সব দেশ থেকে কেউ ধর্ম রক্ষার তাগিদে দেশ ছাড়ে নি, তারা দেশ ছেড়েছে অন্য কারণে।

এই বিলকে অনেকে এন আর সির সাথে গুলিয়ে ফেলছে, কিন্তু তাদের বিজেপির নেতারা জানিয়ে দিয়েছে, এটা ধর্ম নিরপেক্ষ বিল না, এটা করা হচ্ছে শুধুমাত্র যারা আমাদের প্রতিবেশী দেশ গুলোতে থেকে ধর্মীয় ভাবে নির্যাতিত হচ্ছে, তাদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্যই এই বিল পেশ করা।

এই নিয়ে প্রধানমন্ত্রীও বলেছে, আমাদের দেশের দরজা তাদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে যারা আমাদের প্রতিবেশী দেশে থেকে ধর্মীয় ভাবে নিপীড়িত হচ্ছে। এবার তাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্যই এই বিল। কিন্তু এই নিয়ে অনেক জায়গায় বিরোধ আছে, বিশেষ করে বিরোধীদের মধ্যে, তারা বলছে, এই বিল মৌলিক ভাবে সংবিধান বিরোধী।