দেখা যাবে Wolf Moon, বছর শেষে আকাশ আলোকিত করবে চাঁদ, জেনে নিন বিশেষত্ব

সম্প্রতি নাসার মহাজাগতিক আলো-আঁধারি চাঁদ পাহাড়ের ছবি শেয়ার করেছে। আর সেই ছবিতে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন এটি আসলে উলফ মুন। কিন্তু সবার মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে কেন বলা হয় উলফ মুন। গতকাল ৩০ ডিসেম্বর নাসা তাদের অফিসিয়াল ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ছবি শেয়ার করেছে, সেই ছবিটা সত্যিই বিস্ময়কর রূপ ধারণ করেছে। তারা জানিয়েছে, পৃথিবীর এই বন্ধু উপগ্রহ চাঁদকে তিনদিনের জন্য দৃশ্যমান অবস্থায় দেখা যাবে। ২০২০ র ১৩ তম দৃশ্যমান এই চাঁদ যা গতকাল থেকেই দৃশ্যমান।

নাসা জানিয়েছে পৃথিবীতে বছরে যে কয়েকটি পূর্ণিমা দেখা যায় তার প্রত্যেকটি আলাদা আলাদা নাম রয়েছে, আর সেই নামগুলি তৎকালীন ঘটনার উপরে বিচার করেই রাখা হয়। এবার সেই সূত্র ধরেই এবারের পূর্ণিমার চাঁদকে উলফ মুন বলেই অভিহিত করেছেন নাসার বিজ্ঞানীরা।

তবে এই উলফ মুনের পেছনে কিন্তু রয়েছে নেপথ্য কারণ। আসলে গভীর কনকনে শীতের রাতে, শৈত্যপ্রবাহের মাঝে হঠাৎ করে কেঁদে উঠতো নেকড়ে। একেবারে পাহাড়ের চূড়ায় দাঁড়িয়ে পূর্ণিমার চাঁদ কে পিছনে ফেলে গলা উঁচিয়ে কাঁদত। আর সেটাই বর্তমান যুগে উলফ মুন হিসেবে পরিচিত। তবে এই পরিস্থিতি এখনো বিরাজমান কিনা সেটা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়।।