WHO এবং চিন যৌথ ভাবে ক’রোনা ষড়যন্ত্র করেছে, বিস্ফোরক তথ্য ফাঁস করলেন চিনা ভাইরোলজিস্ট

বিশ্বে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর পেছনে চীনের হাত রয়েছে! বারবার এই দাবি নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন চীনা ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান। বর্তমানে তিনি চীন থেকে পালিয়ে এসে আমেরিকায় আশ্রয় নিয়েছেন। নতুবা চীনা প্রশাসন তাকে অনবরত হত্যা করার হুমকি দিচ্ছে। আবারো চীনের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন লি। জানালেন, চীনের ইউহান গবেষণাগারেই তৈরি হয়েছে করোনাভাইরাস। যা এখন বিশ্বে মহামারীর রূপ নিয়েছে।

শুধু তাই নয়, চীনের এই ষড়যন্ত্রের সাথে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নামও জুড়েছেন লি। তিনি দাবি করেছেন, চীনে যে করোনাভাইরাস রীতিমতো আতঙ্ক সৃষ্টি করছে, তা বিশ্বের কাছে প্রথম থেকেই লুকানোর চেষ্টা করেছে চীনা প্রশাসন। আর এই ষড়যন্ত্রের সমান অংশীদার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। লি জানিয়েছেন, চীনের পাশাপাশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও জানতো করোনাভাইরাস মহামারীর আকার ধারণ করছে। তখনো মুখে কুলুপ এঁটে বসেছে তারা। দাবি করেছে, স্থানীয় মাংসের বাজার থেকে রোগ ছড়াচ্ছে।

কিন্তু চীনের এই দাবি সর্বৈব মিথ্যা। লি জানালেন, চীনের প্রশাসনিক দায়িত্বপ্রাপ্ত কমিউনিস্ট পার্টি জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করতেই গুজব ছড়িয়েছে যে ইউহানের মার্কেট থেকে করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে। লি এও দাবি করেছেন, তিনি যা বলছেন তার কাছে তার সব প্রমাণ রয়েছে। চীনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ, তিনি এবং তার সাথে জড়িত গবেষকদের টিম করনা ভাইরাসের উৎস সন্ধানের উদ্দেশ্যে গবেষণা চালাচ্ছিলেন।

কিন্তু হুমকি দিয়ে তাদের গবেষণায় বন্ধ করায় চীনা প্রশাসন। প্রশাসনের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন তাদের চিরতরে পৃথিবী থেকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়। তাই বাধ্য হয়ে আমেরিকায় এসে আশ্রয় নিয়েছেন লি। ইতিমধ্যেই চিনা প্রশাসন তার টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। পাশাপাশি বারবার সাইবার হামলার মুখে পড়ছেন তিনি। তাকে অপদস্ত করা হচ্ছে এবং তার পরিবারকেও ভয় দেখানো হচ্ছে বলে দাবি করেছেন লি।