সোশ্যাল মিডিয়ায় কোন কোন খবর “ফেক”? কি শাস্তি হতে পারে, জেনে নিন

আমরা সবাই জানি সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে সবাই,একটা সময় পৃথিবী ভ্রমণ করতে যেমন ঘরের বাইরে বের হতে হতো মানুষকে এখন সেটা ঘরের মধ্যে বসে থেকেই করা সম্ভব হচ্ছে। কারণ প্রত্যেক ঘরে ঘরে প্রত্যেকের হাতে হাতে এসে গেছে স্মার্টফোন কচিকাঁচা থেকে শুরু করে বৃদ্ধ মানুষ জন সবার কাছে এখন স্মার্টফোন খুবই গুরুত্বপূর্ণ বস্তুতে পরিণত হয়েছে।বিশেষ করে সারা বিশ্বে করণা মহামারীর কারণে স্মার্টফোনের ওপর নির্ভরতা মানুষের জন্য কয়েক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

এতে স্বাভাবিকভাবেই যেমন সুবিধা হয়েছে তেমন অসুবিধা সৃষ্টি হয়েছে চারিপাশে। সোশ্যাল মিডিয়ায় আজকাল সবাই সক্রিয়, আর সেখানে ঘুরে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন ভুয়া খবর, যার কারণে বুঝতে ভুল হচ্ছে মানুষের আর এই বোঝাতেই সঠিক করে তোলার জন্য এক নতুন নিয়ম নিয়ে এলো সুপ্রিম কোর্ট। আসলে ভুয়া খবর মানে হচ্ছে কিছু মানুষের মনগড়া কথা মিথ্যা বার্তা দেওয়া আসলে যার সঠিক কোনো ভিত্তি নেই। মিথ্যা কারসাজি, মিথ্যা যোগাযোগ মনগড়া বিষয়।

২০০৫ সালের ১৫৩, ৪৯৯ ও ৫০০, ৫০৫(১) ধারা, ২০০৮ সালের ৫৪ ধারায় (Section 54) ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ও ১৮৬০ সালের ভারতীয় দণ্ডবিধির ৬৬ডি ধারায় (Section 66D) তথ্য প্রযুক্তি আইনের দ্বারা ভুয়ো খবর নিয়ন্ত্রণ করা যায়। ইতিমধ্যে সুপ্রিমকোর্টের তরফ থেকে বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যদি কোন ভুয়া খবর এ কান দিয়ে সাধারন মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয় তাহলে ৫০৫ দন্ডবিধিতে শাস্তি দেওয়া হবে।

এদিকে যদি কেউ তার নির্দয়তা, কম্পন নিয়ে ভুয়া খবর প্রচার করে থাকে তাহলে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এর অ্যাক্টে ৫৪ ধারায় শাস্তি দেওয়া হবে।