ভোট উল্টানোর চেষ্টা করেছেন, বিদায়ের আগে ট্রাম্পের “গোপন ফোন” সংবাদমাধ্যমে

হাতে আর মাত্র ১৭ দিন রয়েছে। তারপরেই মার্কিন মসনদের ক্ষমতা খোওয়াতে চলেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু মার্কিন মুলুকের আগামী প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে নিজের হার স্বীকার করতে এখনও রাজি নন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই এখনো প্রেসিডেন্ট নির্বাচন সংক্রান্ত ভোট গণনায় কারচুপির অভিযোগ তুলতে শোনা যাচ্ছে তাকে। তবে এবার রীতিমতো হুমকি দেওয়ার পর্যায়ে নেমে এসেছেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রবিবার মার্কিন মুলুকের একটি বিশিষ্ট সংবাদমাধ্যম এমনই একটি ফোন কলের রেকর্ডেড ভার্সন জনসমক্ষে এনেছে। প্রায় এক ঘন্টার ওই ট্যাপড ফোন কলে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে জর্জিয়ার রিপাবলিকান সচিবকে রীতিমতো হুমকি দিতে শোনা যাচ্ছে। যেনতেন প্রকারেণ ভোটের ফলাফল উল্টে দিতে রিপাবলিকান সচিবকে চাপ দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প! এই কল রেকর্ড শুনে স্বভাবতই অবাক রাজনৈতিক মহল।

ওই ফোন কলের রেকর্ডেড ভার্সনে প্রেসিডেন্টকে বলতে শোনা যাচ্ছে, তার পক্ষের ১১ হাজার ৭৮০টি ভোট তিনি খুঁজে পেতে চান। তা যদি না করা হয় তাহলে ব্র্যাড রাফেনস্পারগার এবং কার্যালয়ের সচিবের প্রধান আইনজীবী রায়ান জার্মানির বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করার হুমকিও দিয়েছেন তিনি। প্রায় একঘন্টার ওই ফোন কলে বিভিন্নভাবে জর্জিয়ার রিপাবলিকান সচিবের উপর চাপ সৃষ্টি করার প্রচেষ্টা চালিয়ে গেছেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট এখনো মনে করেন, জো বাইডেন তার ভোট চুরি করেছেন। তাই তার যুক্তি, তার পক্ষের ভোট গুলি যদি খুজেঁ বের না করা হয় তাহলে তা ফৌজদারি মামলার অধীনে আসবে। আর ফৌজদারি মামলা হলে রিপাবলিকান সচিব এবং অন্যান্যদের পক্ষে তা “মারাত্মক বড় ঝুঁকি” হয়ে দাঁড়াবে। উল্লেখ্য, সংশ্লিষ্ট দপ্তরের আধিকারিক কিন্তু এই হুমকির মুখে পড়ে বিশেষ ঘাবড়ে যাননি। বরং তাকে বলতে শোনা গেল, প্রেসিডেন্টের হাতে যে তথ্য রয়েছে তা সম্পূর্ণ ভ্রান্ত। তার জেতার কোনো সম্ভাবনাই নেই। মোট কথা, মার্কিন মসনদ ধরে রাখতে এখন মরিয়া হয়ে শেষ চেষ্টা চালাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।