২ মে কো’নো বি’জ’য় মি’ছি’ল হ’বে না, নি’ষি’দ্ধ ক’র’লো নি’র্বা’চ’ন ক’মি’শ’ন

মাদ্রাজ হাইকোর্টের থেকে চরম সমালোচিত হয়ে শেষমেষ হুশ ফিরলো নির্বাচন কমিশনের। কমিশন এবার একটি বিশেষ নির্দেশিকা প্রকাশ করে জানিয়ে দিল আগামী ২রা মে পশ্চিমবঙ্গসহ দেশের আর যে রাজ্যগুলিতে ভোটের ফল ঘোষণা হবে, সেই দিনে কিংবা তার পরেও বিজয়ী দলের তরফ থেকে বিজয় মিছিল বের করা যাবে না। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

কমিশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, কোন কোন বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে তা মঙ্গলবার বিস্তারিত ভাবে জানিয়ে দেওয়া হবে। তবে আপাতত এটুকুই জানা গিয়েছে যে সংক্রমণ যাতে আরও বেশি ছড়িয়ে না পড়ে সেই উদ্দেশ্যে ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর কোনরকম বিজয় মিছিল বা বিজয় সমাবেশ করা যাবে না।

প্রসঙ্গত করোনার আবহেই নির্বাচন চলছে পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাড়ু, আসাম, পন্ডিচেরি এবং কেরালাতে। এই কঠিন পরিস্থিতিতেও রাজনৈতিক দলগুলির প্রচার এড়ানো সম্ভব হয়নি। প্রভূত জনসমাবেশ হয়েছে। জনসমাবেশ গুলিতে প্রচুর ভিড় করে মানুষ এসেছেন। যার ফলে সংক্রমণ আরো ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকে গিয়েছে। এই নিয়ে বিভিন্ন মহলের কাছে সমালোচিত হয়েছে নির্বাচন কমিশন।

সোমবার মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিচারপতি সেন্থিলকুমার রামমূর্তির ডিভিশন বেঞ্চেও নির্বাচন কমিশনকে চূড়ান্ত অপমানিত হতে হয়েছে। বিচারকদের দাবি, এই মুহূর্তে দেশের যা করোনা পরিস্থিতি তা বিবেচনা করলে নির্বাচন কমিশনের প্রত্যেক আধিকারিকের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা উচিত! নির্বাচন কমিশনের গাফিলতি হাইকোর্টের নজর এড়িয়ে যায়নি। তাই সত্বর ব্যবস্থা গ্রহণের পথে হাঁটছে কমিশন।