‘জিরো বেসড টাইম’, আমূল পরিবর্তন হতে পারে ভারতীয় রেল পরিষেবায়

এখনও কিন্তু আগের মতো রেল পরিষেবা শুরু হয় নি, সেই কারণেই রেলের নতুন কিছু নিয়ে তেমন একটা না জানলেও এটা যে স্পষ্ট, যে রেলের এবার টাইম টেবিল তৈরী হতে চলেছে। তবে আসলে যে এটা কি সেটা এখনও ধোঁয়াশা। তবে ভারতীয় রেল যে সব কিছুই আগে ভাগেই সেড়ে রাখতে চাইছে সেটা কিন্তু স্পষ্ট। আসলে অনেকের মনেই প্রশ্ন আসতে পারে এই জিরো বেসড টাইম টেবিলটা আসলে কি? এটা আসলে ধরে নেওয়া হয়, যখন ট্র্যাকের ওপরে কোনো ট্রেন থাকে না।

আসলে এই যে জিরো বেসড টাইম টেবিল সেটা যখন তৈরী করা হয়, তখন প্রত্যকে ট্রেনকে নতুন ট্রেনের মতো সময় দেওয়া হয়। ট্রেনের যাওয়া আসা, থামা, কোন ট্র্যাকের ওপর দিয়ে যাবে, কোথায় থামবে সমস্তটা। এইভাবে সব ট্রেনের নির্দিষ্ট সময় দেওয়া হয়। আর তারফলেই যাতে কোনো ট্রেনের কারণে অন্য ট্রেনের প্রভাব না পরে, সেটাও দেখা হয়। এতে ট্রেন সময় মতো এসে পৌঁছায়। অন্য কোনো ট্রেনের কারণে যাতে কোনোভাবেই লেট না হয়।

ট্রেনের এই নিয়ম প্রতিবছরের। কারণ এই টাইম টেবিলের মধ্যে জায়গা করে নেয় নতুন কিছু ট্রেন। আর সেই হিসেবেই তৈরী করখ হয় টাইম টেবিল। এই বছরের জুলাই মাসে থেকে ট্রেনের টাইম টেবিল তৈরী করার কথা ছিল, কিন্তু করোনা এসে সমস্তটা নষ্ট করে দেয়। তবে এবার এখন এই টাইম টেবিল চালু হতে চলেছে। এই নতুন টাইম টেবিল হয়তো আগের থেকে একটু এদিক ওদিক হয়ে থাকে। ৫-১৫ মিনিট পর্যন্ত বদল ঘটানো যেতে পারে এই সময়ের।

যার ফলে একটু ট্রেনের সময় গুলো হেরফের হয়। এখন লক ডাউনের কারণে করা না গেলেও আগামীতে করা চালু হবে। এখন অবশ্য ট্র্যাকের মেরামতি চলছে, কারণ করোনা আবহে দেশে মাত্র ২৩০ টি ট্রেনই চালানো হয়েছে। তাই টাইম টেবিল বানানো খুবই সহজ ছিল। তাই এখন বিভিন্ন দিক থেকে ট্রেন লাইনকে উন্নত করার জন্য উঠে পরে লেগেছে ভারতীয় রেল। এই মেরামতির ফলে ট্রেনের গতি আরও বৃদ্ধি করা যাবে।