দেশের বেশ কয়েকটি অলৌকিক শিবমন্দির, যেখানে শিবলিঙ্গের মূর্তি রং বদল করে

অসীম এই মহাবিশ্বের কতটুকুই বা আমরা জানি! কতটুকুরই বা বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দিতে পারি? স্রেফ পৃথিবীর আনাচে-কানাচে যে রহস্য লুকিয়ে আছে, এ পর্যন্ত তারও সবটা ব্যাখ্যা করে উঠতে পারেননি বিজ্ঞানীরা। যেমন ভারতের বেশকিছু মন্দিরে কি গভীর রহস্য লুকিয়ে রয়েছে, তার ব্যাখ্যা এখনো পর্যন্ত দেওয়া সম্ভব হয়ে ওঠেনি। এর মধ্যে রয়েছে ভারতের বেশকিছু শিব মন্দির, যে মন্দির গুলিকে ঘিরে রহস্য দিন প্রতিদিন ঘনীভূত হয়ে চলেছে।

ভারতবর্ষের বেশ কিছু মন্দিরের শিবলিঙ্গ নাকি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে রং বদলায়! এরকম কিছু অদ্ভুত মন্দিরের মধ্যে রয়েছে রাজস্থানের ধৌলপুরের অচলেশ্বর মহাদেব মন্দির। এই মন্দিরের শিবলিঙ্গটি দিনে তিনবার রং বদলায়। সকালে লাল রং, বিকেলে জাফরান রং এবং সন্ধ্যায় শ্যাম বর্ণ ধারণ করে এই মন্দিরের অদ্ভুত শিবলিঙ্গটি। এমন ঘটনাকে অলৌকিক বলেই ব্যাখ্যা করেন ভক্তরা।

আবার উত্তরপ্রদেশের লক্ষীপুরের খেরি জেলায় অবস্থিত নর্মদেশ্বর মহাদেব মন্দিরে অধিষ্ঠিত শিবলিঙ্গটির ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। এই মন্দিরের ভক্তরা বিশ্বাস করেন সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে রং পরিবর্তন করেন মহাদেব। উল্লেখ্য এটিই ভারতবর্ষের একমাত্র মন্দির যেখানে ব্যাঙের উপাসনা করা হয়। এখানে শিবলিঙ্গটি একটি ব্যাঙের উপর অধিষ্ঠিত।

উত্তরপ্রদেশেরই ঘাটমপুর তহশীলে অবস্থিত কালেশ্বর মন্দিরের শিবলিঙ্গটিও সূর্যের স্থান পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে দিনে তিনবার রং পরিবর্তন করে। উত্তরপ্রদেশের পিলিভিত জেলায় অবস্থিত লিলুতিনাথ শিব মন্দিরের শিবলিঙ্গটিও সকালে কালো, বিকেলে বাদামি এবং রাতে হালকা শ্বেত বর্ণ ধারণ করে। কেন, সেই প্রশ্নের জবাব আজও অধরাই থেকে গিয়েছে।