এই কারণেই বিরাট ও অনুষ্কা নিজেদের মেয়েকে ক্যামেরার সা’ম’নে আনেন না!

সেলিব্রেটি দের মধ্যে বেস্ট কাপলের তালিকায় প্রথমে ই যাদের নাম উঠে আসে তাঁরা হলেন বিরাট কোহলি এবং অনুষ্কা শর্মা। ভারতীয় টিমের অসাধারণ ক্রিকেটার এবং বলিউডের সুপারহিট ফিল্মের গ্ল্যামারাস নায়িকার জুটি।

এই জুটি সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ অ্যাক্টিভ। রিলেশনের সময় থেকে বিয়ে পর্যন্ত এই জুটি সবসময়ই থেকেছে চর্চায়। জাঁকজমক সহযোগে বিভিন্ন ফিল্ডের নামিদামি গেস্টের উপস্থিতিতে সুদূর ইটালিতে ডেস্টিনেশন ওয়েডিং করেছিলেন এই কাপল।

গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সালের ১১ই জানুয়ারি বিরাট এবং অনুষ্কার কন্যা ভামিকার জন্ম হয়। তারপর থেকে বাবা-মা’র পাশাপাশি সেও আলোচনার বিষয় হয়ে ওঠে। আর যে বিষয়ে সবথেকে বেশি আলোচনা হয় তাহল ভামিকার জন্মের এক বছর পাড় হয়ে গেলেও তার মুখ কাউকে দেখায়নি এই সেলেব দম্পতি।

আরো পড়ুন: এবার জিন্না টাওয়ারের না’ম বদলের দা’বি উঠলো

যাঁরা কিনা সোশ্যাল মিডিয়ায় এতো অ্যাক্টিভ! কেনই বা ভামিকার চেহারা সকলের থেকে লুকিয়ে রাখতে চান! আজকের প্রতিবেদনের বিষয় এটিই। চলুন তবে দেরী না করে জেনে নেওয়া যাক।

বিরাট কোহলি প্রত্যেক ফ্যামিলি ট্রিপ বা ম্যাচের জন্য বিদেশ যাওয়ার সময় মিডিয়াকে বেশ কয়েকবার অনুরোধ করেন যাতে তারা কখনোই তাঁর মেয়ে ভামিকার ছবি তুলে ইন্টারনেটে ছেড়ে না দেয়।

আর মিডিয়া ও তাঁর ইচ্ছা কে সম্মান জানিয়ে এসেছে বরাবর। তারা ভামিকার কোনো ছবি তোলেননি এবং ইন্টারনেটে ভাইরাল করেনি। আর সেই কারণেই বিরাট কোহলি প্রত্যেক বার মিডিয়া কর্মী এবং সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানান।

এ প্রসঙ্গেই একবার বিরাট লিখেছিলেন, “আমার কথাকে সম্মান জানিয়ে আমার মেয়ে ভামিকার ছবি যে তারা ক্লিক করেনি বা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করেনি তার জন্য আমি সমস্ত মিডিয়া কর্মীদের ধন্যবাদ জানাই।

আসলে আমরা আমাদের মেয়ে ভামিকাকে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে মুক্ত রাখতে চাই এবং ইন্টারনেট থেকে দূরে রেখে তাকে যথাসম্ভব সেরা জীবন দিতে চাই।” যদিও কখনও কখনও ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মা অনুষ্কার সাথে ভামিকাকে একঝলক দেখতে পাওয়া গেছে। তার সাক্ষী যদিও খুব কমজনই।