50 থেকে 60 কিমি বেগে বইবে ঝোড়ো হাওয়া, দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় হবে ভারি বৃষ্টি

বছরের শুরু থেকেই বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এবারে ভরা বৈশাখে যতটা গরম থাকার কথা ছিল ততটা গরম পড়েনি। কিন্তু মাঝে মাঝেই ঝড় বৃষ্টি সহ বজ্রবিদ্যুত হয়েছে। বেশ কয়েকবার মাঝ রাতেও বৃষ্টি হয়েছে। এণনিতেই একটি ঘূর্ণিঝড় ঘনীভূত হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল আবহাওয়া দফতর। তবে কয়েকদিন আগেই আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফ থেকে আগামী কয়েক সপ্তাহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা জারি করেছিল।

তবে আজ দক্ষিণবঙ্গের সাত জেলায় ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি করল হাওয়া অফিস। পাশাপাশি কোথাও কোথাও বর্জ্রবিদ্যুতের আশঙ্কাও প্রকাশ করা হয়েছে। আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফে রবিবার পুরুলিয়া, বীরভূম, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব এবং পশ্চিম বর্ধমানে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রবিবার সকাল থেকেই মেঘলা আকাশ। তারসঙ্গে গুমোট ভাব ছিল। রোদের তেজও ছিল প্রখর। যদিও বিকেলের পর ঠান্ডা হাওয়া বইছে। কিন্তু গরমের দাপট অব্যাহত। এদিন শহর কলাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭.৩ ডিগ্রি সেলাইয়াস যা স্বাভাবিকের তুলনায় ২ ডিগ্রি বেশি।

তবে দক্ষিণবঙ্গের সাত জেলা ছাড়াও ঝড় বৃষ্টির প্রভাব পড়তে পারে আরও বেশ কয়েকটি জেলায়।প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে এপ্রিলের শেষে ও মে মাসের শুরুতে বঙ্গোপসাগরে একটি ঘূর্নিঝড় তৈরির সম্ভাবনা ছিল। যদিও এখনও অবধি দাপট দেখা যাচ্ছে না। কিন্তু এবছর যেহেতু প্রায়ই আকাশ মেঘলা থাকছে তাই সম্ভাবনা এখও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।