মুখ্যমন্ত্রীকে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দিতে আগ্রহী কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

প্রয়োজন পড়লে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে দেওয়া হবে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা।ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে এই বার্তা দেওয়া হয়েছে, তবে অবশ্যই যদি মমতা ব্যানার্জির স্বয়ং এই নিরাপত্তা নিতে চান তাহলেই। গতকাল বুধবার নন্দীগ্রামে সভা করতে গিয়ে চোট পান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, আর তারপরেই অমিত শাহের মন্ত্রক খোঁজ নিতে থাকে তার। আর তার ঠিক পরেই কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়ার কথা জানানো হয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে।

স্বাভাবিকভাবেই গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর সভার পরেই নিরাপত্তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কারণ জেড প্লাস সিকিউরিটি মধ্যে থাকা সত্ত্বেও কিভাবে তিনি এই চোট পেলেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে, অবশ্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন এটা একটা বিরাট ষড়যন্ত্র। মুখ্যমন্ত্রী জানায় সেই সময়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন না পুলিশের এসপি। বিভিন্ন দিক থেকে প্রশ্ন ওঠা শুরু হয়েছে, বিশেষ করে নির্বাচন কমিশনের হাতে বর্তমানে প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণ থাকা সত্ত্বেও কিভাবে এমন ঘটনা ঘটলো।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও এই ধরনের ঘটনা সত্যি নিন্দনীয়। রাজ্য বিজেপির তরফ থেকেও রাজ্য নেতৃত্তের সাথে কথা বলা হয়। এমনকি বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব সর্বদাই খোঁজ করতে থাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। রাজ্য বিজেপির অনেক নেতাই এই ঘটনার পর বিভিন্ন মন্তব্য করেন। তবে রাজ্যসভার সংসদ টুইট করে,মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন ও দরকার পরলে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়ার কথাও বলেন।

এদিকে অর্জুন সিং এক বিস্ফোরক মন্তব্য করেন, তিনি বলেন সহানুভূতি আদায় করার জন্য তিনি আগেও এমনটা করেছেন। এদিকে মুকুল রায় জানায়, তিনি বলছেন ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। আসলে কে চক্রান্ত করেছে সেটা বলতে হবে।