হাতরস কাণ্ডের তদন্তভার দেওয়া হল সিবিআইয়ের হাতে

উত্তরপ্রদেশের হাথরাস গণধর্ষণ কাণ্ড এবং খুনের তদন্তভার গেল সিবিআই এর হাতে। উত্তর প্রদেশে পুলিশের পাশাপাশি এতদিন মামলার তদন্ত করছিল সিট। এবার সম্পূর্ণ মামলাটিকে নিজেদের মতো করে তদন্ত করবেন সিবিআই আধিকারিকেরা। গত শনিবার, মামলার তদন্তভার গ্রহণ করে গাজিয়াবাদের সিবিআই টিম। সিবিআই এর তরফ থেকে ইতিমধ্যেই এই মামলার একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, হাথরাসের তরুনীর ওপর ঘটে যাওয়া বর্বরোচিত ঘটনার পর প্রায় ২৭দিন কেটে গেছে। এই সময়ের মধ্যে বহু বিতর্কে সামনে এসেছে। পাশাপাশি, নির্যাতিতার মৃত্যুর কারণ নিয়েও ধন্দে রয়েছেন তদন্তকারী আধিকারিকেরা। সোমবার হাইকোর্টে এই মামলার শুনানি রয়েছে। তার আগে ঘটনাস্থলে পৌঁছে সমস্ত দিক খতিয়ে দেখবেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। তাদের সঙ্গে থাকবে সিবিআই।

গত ১৪ই সেপ্টেম্বর, অর্থাৎ ঘটনার দিন ক্ষেতে ৪০জন কাজ করছিলেন বলে জানিয়েছেন সিটের আধিকারিকরা। এদের প্রত্যেককেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পাশাপাশি, মৃতা তরুণীর পরিবারের সদস্যদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এর মধ্যে আবার একটি চাঞ্চল্যকর তথ্য পেশ করেছে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দীপের সঙ্গে নাকি দীর্ঘ দিন ধরে ফোনে যোগাযোগ ছিল মৃতার পরিবারের কোনো সদস্যের।

কল ডেটা রেকর্ড বা সিডিআর চেক করে জানা গেছে, মৃতার দাদার নামে রেজিস্ট্রার করা একটি নম্বরে অভিযুক্তের তরফ থেকে বারবার ফোন আসতো। এই সব তথ্য খতিয়ে দেখবে সিবিআই। পাশাপাশি, উত্তর প্রদেশ পুলিশের রিপোর্টে দেশদ্রোহ, আইন ভঙ্গ এবং ষড়যন্ত্রের যে অভিযোগ করা হয়েছে, সে সম্পর্কেও তদন্ত চালানো হবে বলে জানা গেছে।