ইন্টারনেট একদম স্লো, নিজেই এই উপায়ে বাড়িয়ে নিন স্পীড, জানুন এখনই

ওয়ার্ক ফ্রম হোম করার সময় অনেক সময় ইন্টারনেট স্পিড বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। অথবা কোনো দরকারি কাজ করার সময়, ওটিটি প্লাটফর্মে সিনেমা বা ওয়েবসিরিজ দেখার সময়েও ইন্টারনেট স্পিড বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। ইন্টারনেট বিশেষজ্ঞদের মতে, বেশ কিছু ঘরোয়া টোটকা রয়েছে, যার সাহায্যে খুব সহজেই ব্রডব্যান্ড কানেকশনের গতি বাড়িয়ে নেওয়া যেতে পারে। জেনে নিন সেই পদ্ধতিগুলো সম্বন্ধে। কিছু কিছু সময়ে হটাৎ করেই রাউটারের স্পিড কমে যায়। এই সমস্যার সমাধানের জন্য নতুন করে রাউটারের সেটিংস আবার চালু করলে, আপনার রাউটারটি আবার পুরনো ছন্দে অনেক ভালো স্পিডেই কাজ শুরু করবে। এ ছাড়াও প্রতিদিন নিয়ম করে কাজে বসার আগে বা পরে অন্তত ১০ মিনিটের জন্য রাউটার বন্ধ রাখুন।

রাউটার টিভির সামনে, ডেস্কটপ বা ল্যাপটপের সামনে রাখলে ইন্টারনেটের সঠিক স্পিডের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা গিতে পারে। কারণ ইলেকট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গ রাউটারের ইন্টারনেটের গতি অনেকখানিই কমিয়ে দেয়। এরজন্য ঠিকঠাক এবং নিরাপদ স্থানে রাউটারটি রাখতে হবে। টিভি, ল্যাপটপ, ডেস্কটপ বা যেখানে বসে আপনি মোবাইল থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন, সেখান থেকে বেশ কিছুটা দূরত্বে রাউটার রাখুন। রাউটারের জন্য নিরাপদ পাসওয়ার্ড রাখুন। কারণ কেউ পাসওয়ার্ড জেনে গেলে এবং আপনার রাউটার থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করলে ইন্টারনেটের গতি কমে যাবে। ভিপিএন ব্যবহার করবেননা। ভিপিএন ব্যবহার করলে ইন্টারনেট স্পিড অনেকটাই কমে যায়। তবে কাজের ক্ষেত্রে ভিপিএন ব্যবহার করতেই হলে, সেক্ষেত্রে কিছু করার নেই।

অন্য সময় যদি ভিপিএন ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক না হয়, সেক্ষেত্রে ভিপিএন বন্ধ করে রাখবেন। রাউটারের চাইতে অনেক বেশি স্পিড দেয় LAN কেবল। তাই ইন্টারনেটের দ্রুত পাওয়ার জন্য LAN কেবল ব্যবহার করুন। তবে খুব পুরোনো LAN কেবল ব্যাবহার করলে ইন্টারনেট স্পিড কমে যাবে। তাই নতুন LAN কেবল ব্যবহার করুন। Cat-6 এবং Cat-6a LAN কেবল ব্যবহার করুন, এতে ন্টারনেটের স্পিড খুবই বেশি পাবেন। বাড়ির একাধিক মানুষ একসঙ্গে ইন্টারনেট ব্যবহার করলে স্পিড কমে যায়। তাই আপানি যদি রাউটার ব্যবহার করে ওয়ার্ক ফ্রম হোম করেন, সেক্ষেত্রে পরিবারের বাকি সদস্যদের বলবেন মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করতে। কারণ অফিসের কাজের সময় ইন্টারনেটের গতি কম থাকলে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।