তৃণমূলের সব অভিযোগ খারিজ করে দিলো নির্বাচন কমিশন, দিলো কড়া চিঠি

গত বুধবার নন্দীগ্রামে মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বঙ্গের রাজনীতি এখন মুখ্যমন্ত্রীর আঘাত প্রসঙ্গে রীতিমতো উত্তাল হয়ে রয়েছে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূলের তরফ থেকে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে। সেই মর্মে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। তবে রাজ্য শাসকদলের সকল অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে কমিশন।

বুধবারের অনভিপ্রেত ঘটনা প্রসঙ্গে কমিশনের বিরুদ্ধে রাজ্য শাসকদলের অভিযোগ ছিল মুখ্যমন্ত্রীর প্রচারে যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থার অভাব ছিলো। এছাড়াও রাজ্য পুলিশের এডিজি এবং ডিজির বদলি প্রসঙ্গেও প্রশ্ন তোলে তৃণমূল। এই প্রসঙ্গে কমিশনের জবাব, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যে ঘটনা ঘটেছে তার জন্য কমিশন কোনভাবেই দায়ী নয়। তবে ঘটনার তদন্ত করবে কমিশন।

কমিশনের তরফ থেকে এও জানানো হয়েছে, তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ীই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। রাজ্য পুলিশের ডিজি এবং এডিজির বদলিকে কেন্দ্র করে যে প্রশ্ন উঠেছে তার পরিপ্রেক্ষিতে কমিশনের জবাব, নির্বাচন উপলক্ষে কমিশনের তরফ থেকে রাজ্যে যে দুইজন পর্যবেক্ষককে পাঠানো হয়েছিল তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতেই ওই দুইজনকে বদলি করা হয়েছে।

রাজ্যের প্রতি নির্বাচন কমিশনের তিন পাতার চিঠিতে জানানো হয়েছে সংবিধানের ৩২৪ ধারা অনুযায়ী লোকসভা এবং বিধানসভা নির্বাচনী প্রক্রিয়ার পরিচালনার দায়িত্ব বর্তায় নির্বাচন কমিশনের উপর। তবে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার উপর নজর রাখা তাদের দায়িত্ব নয়। পাশাপাশি রাজ্যের অভিযোগ ছিল একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের হয়ে কাজ করছে কমিশন! এই অভিযোগ কমিশনের পক্ষে অত্যন্ত “অবমাননাকর” বলেই মনে করছে নির্বাচন কমিশন।