মঙ্গলের প্রভাব দেখা দেয় আপনার পেশাতেও, গ্রহের অবস্থান বুঝে শুনে ঠিক করুন নিজের কেরিয়ার

জ্যোতিষশাস্ত্র নিয়ে মানুষের কৌতূহল বরাবরই আছে, তাই মানুষকে নানারকম পুঁথি তাবিজ বিভিন্ন রকম কিছু ধারণ করতে দেখা যায়, সংবাদপত্রের অনেকগুলো পাতা শুধুমাত্র জ্যোতিষবিদদের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট ভরে যায়। এমনকি এখন সোশ্যাল মিডিয়াতেও জ্যোতিষ বিচারের কমতি নেই। তারা ভাগ্য গণনা করে ভবিষ্যৎ বলে দিতে পারে। এমনকি স্বাস্থ্য ক্যারিয়ার পড়াশোনা বিবাহ আরো জীবনে নানা সমস্যার সমাধান করে দিতে পারে বলে দাবী রাখে। সেই জ্যোতিষ শাস্ত্রী বিভিন্ন গনণার মধ্যে মঙ্গল একটু অন্যতম উল্লেখযোগ্য গ্রহ। এককথায় মঙ্গলকে নবগ্রহের মন্ত্রী হিসেবে ধরা হয়। মঙ্গল হল সাহস ধৈর্য আত্মবিশ্বাস এনার্জি দেশাত্মবোধ শক্তি মানসিক দৃঢ়তার রাগ ঘৃণা উত্তেজনা চ্যালেঞ্জ এই সমস্ত বিষয়ে ক্ষমতা নিয়ন্ত্রিত হয় মঙ্গল এর অবস্থান এর দ্বারা। তবে মঙ্গলের বিভিন্ন অবস্থানে বিভিন্ন রকম প্রভাব পড়ে মানুষের জীবনে।

জ্যোতিষ শাস্ত্রে বলা হয় মানুষের যে, কুষ্টি করা হয় সেই কুষ্টিতে মঙ্গলের অবস্থানের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। সেই ব্যক্তির ভাগ্যে মঙ্গলের প্রভাব অনেকটাই দায়ী। কর্কট রাশি মকর রাশির উপর মঙ্গল এর প্রভাব থাকে, সবথেকে উল্লেখযোগ্য বৃশ্চিক রাশির জাতকদের নিয়ন্ত্রণ করে মঙ্গল গ্রহ অর্থাৎ নিয়ন্ত্রকের ভূমিকা পালন করেন মঙ্গল। এই গ্রহ হল শুদ্ধতার প্রতীক। তবে এই গ্রহের প্রথম দ্বিতীয় ও চতুর্থ সপ্তম অষ্টম ও দ্বাদশ স্থানের মধ্যে যেকোনো একটিতে যদি মঙ্গল থাকে সেই সমস্ত জাতক-জাতিকাদের মাঙ্গলিক বলা হয়।

অনেকেই আমরা এই মাঙ্গলিক শব্দটির সাথে পরিচিত, কিন্তু অনেকেই হয়তো এই মাঙ্গলিক সম্পর্কে কোনো সুস্পষ্ট ধারণা থাকে না। কিন্তু আমরা মাঙ্গলিক বললেও জ্যোতিষশাস্ত্রের অপর একটি নাম আছে যাকে বলে ভৌমদোষ। জ্যোতিষ বিজ্ঞানীরা এটাও বলে থাকেন যে মঙ্গলের দশা মানুষের জীবন ছারখার করে দিতে পারে। এমনকি বিবাহিত জীবনে নানান সমস্যার ডেকে আনতে পারে , এমনকি ডিভোর্স পর্যন্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

এছাড়াও ক্যারিয়ারের উপরও কু প্রভাব পড়তে পারে, তবে এবার এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক যে, মঙ্গল কোন কোন স্থানে থাকলেই কি কি হতে পারে, প্রথমেই বলা যাক জাতক জাতিকার জন্ম লগ্নে যদি মঙ্গল থাকে তাদের ক্রোধ বেশি হয়। আর ক্রোধ খুব বেশি থাকলে মাথা গরম হওয়ার একটা প্রবণতা দেখা যায়। এছাড়াও তারা জেদী ও ইচ্ছাশক্তি পরিপূর্ণ এবং কর্তৃত্বপরায়ণ হয়ে থাকে। এবার দেখা যাক মঙ্গলের অধিষ্ঠান যদি দ্বিতীয় ঘরে হয় যতবার জাতি কারা স্বাধীনচেতা মনোভাব এর হয়ে থাকেন। তবে পড়াশোনার ক্ষেত্রে তারা নানা নানা বাধা বিঘ্নের সম্মুখীন হয়ে পড়েন। মঙ্গলের অধিষ্ঠান যদি এবার তৃতীয় ঘরে হয় জাতক জাতিকারা অত্যন্ত সাহসী হয় তবে এরা সরকারি চাকরি পেয়ে থাকেন এবং প্রযুক্তিবিদ্যা নিয়ে পড়াশোনা করতে পছন্দ করে।

চতুর্থ ঘরে মঙ্গলের অধিষ্ঠান হলে, সেই সমস্ত ব্যক্তির আর্থিক স্বচ্ছলতা থাকে, স্বাভাবিকভাবেই নিজস্ব বাড়ি থাকবে। এমনকি সরকারি চাকরি যেমন পুলিশ বা সেনাবাহিনীতে কাজের সুযোগ আসবে। পঞ্চমে মঙ্গলের অবস্থান থাকলে তারা জীবনে ডাক্তারিকে পেশা হিসেবে নিতে পারেন। তবে এদের বেড়াতে যাওয়ার যাকে বলে বেড়ানোর ভাগ্য থাকে এবং এরা ভালোওবাসেন বেড়াতে যেতে। মঙ্গলের অধিষ্ঠান ষষ্ঠ ঘরে থাকলে এদের মনের জোর খুব বেশি হয়।।ম এরা নিজেদের স্বপ্ন সফল করতে সক্ষম হন নিজের পরিশ্রমের ইচ্ছা শক্তি দ্বারা।

সপ্তমে মঙ্গল অধিষ্ঠান করলে ব্যাবসায়িক দিক এর এরকমই সাফল্য লাভ করে এবং এদের নাম যশ খ্যাতি হয়। তবে এদের অর্থনৈতিক দিক একটু সংকটময় হয়ে থাকে। এবার আসা যাক অষ্টম ঘরে যদি মঙ্গল অধিষ্ঠিত হয় সেই সমস্ত জাতকরা বিভিন্ন অনৈতিক কাজের সাথে জীবনে জড়িয়ে পড়তে পারে। নবম ঘরে মঙ্গলের অধিষ্ঠান থাকলে সে সমস্ত জাতকরা পেশা হিসেবে ব্যবসা করতে পারে এবং তার ফলে সমৃদ্ধি ও প্রতিপত্তি অনেক জীবনে বাড়িয়ে তুলতে পারে। কিন্তু তার ব্যক্তিগত জীবনে সুখী হবে। কিন্তু কেউ যদি ডাক্তার একে পেশা হিসেবে বেছে নেয় সেক্ষেত্রে সে অনেক খ্যাতি অর্জন করবে। দশমে মঙ্গল অধিষ্ঠান করলে উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ারে ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং কে পেশা হিসেবে নিতে পারেন। এমনকি পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করতে পারে। তবে এটা মানা হয় যে দশম ঘরে মঙ্গল থাকা আইনজীবিদের জন্য খুবই শুভ বিষয়।

একাদশে মঙ্গল থাকা জীবনে বেশ লাভজনক হয়। নানা দিক থেকে লাভবান হতে থাকে। আর সর্বোপরি শেষে আসা যাক দ্বাদশ ঘরে মঙ্গল থাকলে সে ব্যক্তির অর্থ সম্পত্তির ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা থাকে এবং ব্যক্তি হিসেবে সে রাগী প্রকৃতির হয় অল্পতেই রেগে যায় এ ধরনের ধরনের একটি প্রবণতা থাকে। তারা খুব একটা ধার্মিক হয় না, তারা এই ধরনের নানান বিষয় ওপর প্রভাব ফেলে। মঙ্গল আদৌ জীবনে কতটা মঙ্গল ময় তারই বর্ননা রয়েছে তা হয়তো আমাদের কাছে অনেকেরই অজানা।