চা বিক্রি করেই ২৩ টি দেশ ঘুরেছেন, ক’রোনা কালে আয় বন্ধ, এবছর বিদেশ পাড়ি দেওয়া হলো না দম্পতির

কথাটা শুনে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি চা বিক্রেতা হওয়া সত্বেও এই দম্পতি মোট 23 টি দেশ ঘুরে ফেলেছেন তাদের জীবনকালে। কোচির এই চা দম্পতি ১৯৬৩ সাল থেকে চা বিক্রি করছেন। প্রথমে তারা রাস্তায় রাস্তায় বেরিয়ে চা বিক্রি করতেন। তাদের বৈবাহিক জীবনের প্রথম ধাপটা খুবই কষ্টকর ছিল। রাস্তায় রাস্তায় চা বিক্রি করে তত টাকা উপার্জন হতোনা।

অনেক পরিশ্রম ও যুদ্ধ করার পর টাকা জমিয়ে তারা একটি ছোট্ট চায়ের দোকান খোলেন। তারপর আস্তে আস্তে পরিশ্রমের ফলে ওই ছোট্ট চায়ের দোকান থেকে অনেক বড় করে তোলে এবং তাদের চাও অনেক জনপ্রিয় হয় মানুষের কাছে। এখন অবশ্য তাদের চায়ের দোকান খুবই ভালোই চলে উপার্জনও বেশ ভালই হয়। কিন্তু এই বছরে করোনার জন্য এবং লকডাউন এর জন্য তাদের ব্যবসা অনেকটাই মার খেয়েছে। সেরকম এবছরে উপার্জন হয়নি তাদের এবং করোনার জন্য তাদের বিদেশযাত্রা বন্ধ হয়ে গেছে এই বছরে।

চা দম্পতি তাদের এই জীবন কাহিনী সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন। এবং তার সাথে চা দম্পতির আগের বছরের বিদেশযাত্রার কিছু ফটো শেয়ার করেছিলেন। ফটোগুলো থেকে বোঝা যায় তারা আমেরিকা, পেরু, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল সুইজারল্যান্ড সহ আরো অনেক জায়গায় ঘুরে বেরিয়েছেন। প্রত্যেকদিন উপার্জনের থেকে 300 টাকা করে জমিয়ে রাখতেন, যাতে বছরে তারা একবার ট্রুর করতে পারে।

এ বিষয়টি নিয়ে নেটদুনিয়ায় অনেকে অনেক রকমের মন্তব্য করেছেন। অনেক বলেছেন তারা এই চা দম্পতির মতই বছরে একবার করে সারাবিশ্ব ঘুরতে চান। অন্যদিকে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন তারা এত টাকা কোথা থেকে পেলেন। চা বিক্রি করে এত টাকা উপার্জন করা সম্ভব নয় এবং বিদেশযাত্রা তো কোনভাবেই নয়। এই বছরে করোনা মহামারীর জন্য এই দম্পতি বিদেশে যেতে পারলনা ।এই নিয়ে তাদের যথেষ্ট দুঃখ রয়েছে এবং তারা আশা করে পরের বছর তারা নিশ্চয়ই বিদেশ যাত্রা করতে পারবেন।