কাশ্মীরে সাত শীর্ষ জঙ্গি নেতাকে টার্গেট! বড়সড় অপারেশন ভারতীয় সেনার

এবার আর রক্ষে নেই বলেই মনে করা হচ্ছে, কারণ ইতিমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি তুঙ্গে। আসলে গত রবিবার সেনার হাতেই খতম হয় হিজবুল মুজাহিদিনের প্রধান ডক্টর সাইফুল্লাহ। তার আগে খতম করা হয়েছে রিয়াজ নাইকু যিনি কিনা ছিলেন হিজবুলের কমান্ডার। এবার বাকি দেরও খতম করার নিকেশ করার পরিকল্পনা তুঙ্গে, ইতিমধ্যে ব্লু প্রিন্ট তৈরী হয়ে গেছে । এই দুই নেতা খতম হওয়ার পর থেকেই উপত্যাকায় জঙ্গীরা কিছুটা হলেও কোণঠাসা। এবার সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আগামী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছে সেনারা।

২০২০ সবার জন্য একটি কালো বছর, কিন্তু ভারতীয় সেনাদের জন্য একটি বিরাট জয়ের বছর, কারণ এবার ২০০ র বেশী জঙ্গীকে ক্ষতম করেছে তারা। আর সেই সাহসেই ও উদ্যমে উপত্যাকায় জঙ্গিদের উপস্হিতি একেবারে মুছে দিতে চাইছে সেনারা, এটা নিয়ে তারা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এখনও পর্যন্ত ৭ জন জঙ্গী নেতার নাম নথীভুক্ত করা হয়েছে, সেটা হিজবুল মুজাহিদিন, থেকে লস্কর ই তৈবার মতো জঙ্গী সংগঠন গুলোর। কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় এই জঙ্গীদের দ্বারাই নাশকতা ছড়ানো হয়, আগামীদিনে তাদের খতম করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে, যার ফলে জঙ্গী মুক্ত হতে পারে এই উপত্যকা।

এদিকে ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রে অনেক খবর সামনে এসেছে, যার মধ্যে একটি হল চিনের ড্রোন ব্যবহার করে অস্ত্র পাচারে করছে পাকিস্তান রাজস্থান ও কাশ্মীরে। যেটা এবার হাতেনাতে ধরেছে ভারতীয় সেনা। এই ড্রোনের সাহায্যে অস্ত্র পাচারই শুধু নয়, সাথে ভারতীয় সেনাদের ওপরে হামলাও করা হচ্ছে। এই কাজ যৌথভাবে করছে আই এস আই ও পাক সেনা। কিন্তু এইসব যে একেবারে মাঠে মারা যাবে তাদের সেটা স্পষ্ট।