এতদিনের সাথী গুলাম নবী আজাদের ডানা ছেঁটে দিলেন সোনিয়া, বহিষ্কৃত দলের সব গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে

সম্প্রতি কংগ্রেসের বেশ কিছু নেতা দলের সভাপতিত্ব নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে কংগ্রেসের বর্তমান সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী কাছে দলের সংস্কার চেয়ে লিখিত আবেদন দিয়েছিলেন। এই ঘটনায় বেজায় চটেছিলেন সোনিয়া গান্ধী। আবেদনকারীদের দলে ছিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক গুলাম নবি আজাদ। এবার সভানেত্রীকে চটানোর ফল হাতেনাতে পেলেন গুলাম নবি আজাদ। দলের সাংগঠনিক স্তরে বেশ বড়সড় বদল আনলেন সভানেত্রী।

শুক্রবার রাতে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানিয়ে দেওয়া হয়, এবার থেকে আর দলের সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছেন না গুলাম নবি আজাদ। তার বদলে এই গুরুদায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে দলের অপর এক নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালার উপর। শুধু তাই নয়, হরিয়ানায় এআইসিসির পর্যবেক্ষক পদেও বহাল ছিলেন গুলাম নবী আজাদ। সেখান থেকেও বহিস্কৃত করা হয়েছে তাকে। গুলাম নবি আজাদের বদলে হরিয়ানার এআইসিসির পর্যবেক্ষক হিসেবে বর্তমানে বিবেক বনসলকে নিযুক্ত করা হয়েছে। তবে কংগ্রেসের নতুন ওয়ার্কিং কমিটি সদস্য তালিকায় অবশ্য গুলাম নবী আজাদের নাম রয়েছে।

এই নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী, দলের মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্ব পেয়েছেন রণদীপ সুরজেওয়ালা। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বর্তমানে তিনি কর্নাটকে দলের দায়িত্বভার সামলাবেন। পাশাপাশি, সভানেত্রীকে পরামর্শ দেওয়ার জন্য ছয় সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। যে কমিটিতে রয়েছেন রণদীপ সুরজেওয়ালা সহ অ্যান্টনি, আহমেদ প্যাটেল, অম্বিকা সোনি, কেসি বেনুগোপাল এবং মুকুল ওয়াসনিক। তবে, দলীয় সভানেত্রীকে লেখা চিঠির অন্যতম স্বাক্ষরকারী জিতিন প্রসাদকে অবশ্য কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির স্থায়ী সদস্য করা হয়েছে। পাশাপাশি, গৌরব গগৈকে সরিয়ে পশ্চিমবঙ্গ এবং আন্দামান-নিকোবরের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক পদে বহাল করা হয়েছে তাকে। কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য পদ থেকে সরিয়ে স্থায়ী আমন্ত্রিত সদস্য করা হয়েছে অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে।