কলকাতার বি’ভি’ন্ন এ’লা’কা’য় জা’রি ১৪৪ ধা’রা, সা’ব’ধা’নে থা’কু’ন

রাজ্যে এখনও দুই দফার নির্বাচন বাকি। ২৬ এবং ২৯শে এপ্রিল সপ্তম এবং অষ্টম দফার ভোট সম্পন্ন হলেই একুশের নির্বাচন সমাপ্ত হবে। তবে করোনা যেভাবে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এবং ভয়াবহ আকার ধারণ করছে তাতে করোনায় মাঝে ভোট সংক্রমণ এড়িয়ে সম্পন্ন করা নির্বাচন কমিশনের কাছে এক চ্যালেঞ্জ স্বরূপ। তবে ভোট বড় বালাই! অতএব এই ভয়াবহ মহামারীর মাঝেই পশ্চিমবঙ্গের মানুষদের ভোট দিতে যেতে হবে।

তবুও যতখানি সম্ভব সংক্রমণ এড়িয়ে ভোট করানোর চেষ্টা চালাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। শেষ এই দুই দফার নির্বাচনে এখনো মালদা, মুর্শিদাবাদ, কলকাতা, বীরভূম এবং পশ্চিম বর্ধমানের ভোটগ্রহণপর্ব বাকি। তাই তার আগেই শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা থেকে ভবানীপুর, রাজবিহারী, বালিগঞ্জ এবং কলকাতা বন্দরের দুশো মিটারের মধ্যে ১৪৪ ধারা জারি করল নির্বাচন কমিশন।

সমগ্র রাজ্যের মধ্যে কলকাতার করোনা পরিস্থিতি প্রশাসনের কাছে উদ্বেগের বিষয় বস্তু হয়ে দাঁড়াচ্ছে। রাজধানী শহর কলকাতার করোনা সংক্রমনের হার সারা রাজ্যের মধ্যে সর্বোচ্চ। তাই সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। করোনা সংক্রমনের মাঝে যাতে মানুষ জটলা না করতে পারেন, সেই উদ্দেশ্যেই কমিশন এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব সম্প্রতি এই মর্মে একটি বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন। সেই বৈঠকেই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।