ড্রাগের সাথে সুশান্তের নাম জড়িয়ে বাঁচার চেষ্টা রিয়ার, বললেন সুশান্ত নাকি ড্রাগ নিতেন

“বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত মাদক নিতেন, তাকে সেই মাদক সরবরাহ করতো সৌভিক এবং স্যামুয়েল”, সোমবার সকালে সংবাদমাধ্যমের কাছে এই দাবি করলেন রিয়া। তিনি আরো জানিয়েছেন, সপ্তাহে এক থেকে দুই দিন সিগারেটের সাথে মাদক মিশিয়ে সেবন করতেন সুশান্ত। তার কাছে সেই মাদক পৌঁছে দিতেন সুশান্তের হাউসকিপার স্যামুয়েল মিরান্ডা এবং রিয়ার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী।

পাশাপাশি, তিনি নিজেও সুশান্তের জন্য দুই-এক বার মাদক সংগ্রহ করেছিলেন বলে জানিয়েছেন। রিয়ার দাবি, সুশান্ত নিজে থেকেই স্যামুয়েল এবং সৌভিককে মাদক সরবরাহ করার দায়িত্ব দিয়েছিলেন। কারণ সুশান্ত জানতেন, সৌভিক এবং স্যামুয়েলের সাথে ড্রাগ সরবরাহকারীদের যোগাযোগ আছে। তাই তাদের মাধ্যমেই ড্রাগ আনাতেন সুশান্ত।

তিনি জানিয়েছেন, স্যামুয়েল মিরান্ডা সুশান্তকে সরাসরি ড্রাগ সরবরাহ করতেন। সৌভিক এবং স্যামুয়েলের এমন বেশ কয়েকজন চেনা পরিচিত ছিলেন, যারা ড্রাগ সরবরাহ করতেন। তবে সৌভিক এবং স্যামুয়েল নিজেরা ড্রাগ সেবন করতেন কিনা সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেননি রিয়া। উল্লেখ্য, ড্রাগ সম্পর্কে জেরা করার জন্য রিয়া চক্রবর্তীকে সোমবার ডেকে পাঠিয়েছে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো।

সেইমতো, সোমবার সকালে তিনি এনসিবির অফিসে পৌঁছে গিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। রবিবার থেকে ড্রাগ প্রসঙ্গে রিয়াকে জেরা করে চলেছেন নারকোটিকস ডিপার্টমেন্টের আধিকারিকেরা। বিশিষ্ট সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবর, সোমবার শৌভিক চক্রবর্তী এবং স্যামুয়েল মিরান্ডাকে সামনাসামনি বসিয়ে জেরা করা হতে পারে রিয়াকে। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই ড্রাগ পাচারকারীদের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে রিয়ার ভাই চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।