সীমান্তে উত্তেজনা করার কথা যেন ভুলেও না ভাবে চিন, কড়া হুঁশিয়ারি রাজনাথের

সম্প্রতি রাশিয়া সফরকালীন ভারত এবং চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্ররা লাদাখের সীমান্ত উত্তেজনা প্রসঙ্গে বৈঠক করেন। তবে বৈঠকের পর চীনের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা থেকে এখনই সেনা সরাতে রাজি নয় চীন। পাশাপাশি, সীমান্ত বিতর্কের জন্য সমস্ত দায়ভার ভারতের উপরেই চাপিয়ে দিয়েছে বেজিং। এরপর শনিবার, এক টুইট বার্তায় চীনের প্রতি কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানালেন, সীমান্ত পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার চেষ্টা করলে ফল ভালো হবে না।

এদিনের টুইট বার্তায় রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, সীমান্ত সমস্যার সমাধানে আলোচনা চলছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় শান্তি বজায় রাখার দায়িত্ব উভয় রাষ্ট্রকেই পালন করতে হবে। পাশাপাশি চীনের প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি জানিয়েছেন, ভারত কখনো কারোর উস্কানিতে কাজ করে না। প্রয়োজনে, শত্রু পক্ষের প্রতি কড়া পদক্ষেপ নিতেও পিছপা হবে না ভারত। এরপর তিনি জানিয়েছেন, চীন যদি সীমান্ত থেকে সেনা অবস্থান সরাতে রাজি হয়, তাহলে ভারতও একই পথে এগোবে।

এদিনের টুইট বার্তায়, লাদাখের প্যাংগং লেকের ফিঙ্গার পয়েন্ট এলাকাগুলি নিয়ে চীনের আগ্রাসী মনোভাবের সমালোচনা করেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের পথে এগোতে চায় ভারত। লাদাখের যে এলাকাগুলি নিয়ে বিতর্ক বেধেছে, তার সমাধান দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমেই করতে চায় ভারত। পাশাপাশি চীনের প্রতি তার বার্তা, ভারতের আশা প্রতিবেশী রাষ্ট্র চীনও আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানের পথে এগোক।

চীনের প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি জানিয়েছেন, সীমান্ত সম্পর্কে শত্রুপক্ষের সাথে কোনো আপোষের পথে যাবে না ভারত। প্রসঙ্গত, বিগত বেশ কয়েক মাস ধরে লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় ভূখণ্ড দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি।সীমান্ত শান্তি প্রতিষ্ঠা করার জন্য ও ভাই রাষ্ট্রের সেনা আধিকারিকদের মধ্যে বেশ কয়েক দফা বৈঠকের আয়োজন করা হলেও ফল মেলেনি। সীমান্তে নিজের অবস্থান থেকে সরতে নারাজ চীন।