দীর্ঘ ১৭ বছরে রেকর্ড, সীমান্তে ৩০০০-এর উপরে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান

সম্প্রতি লোকসভার বাদল অধিবেশন নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, বিগত আট মাসে উপত্যকা অঞ্চলে প্রায় ৩১৮৬ বার সংঘর্ষবিরতি লংঘন করেছে পাকিস্তান। বিগত ১৭ বছরের ইতিহাসে যা নজিরবিহীন। জম্বু কাশ্মীরের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকে সেপ্টেম্বরের ৭ তারিখ পর্যন্ত ৩১৮৬ বার গোলাগুলি চালিয়েছে পাকিস্তান।

উল্লেখ্য, ২০০৩ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর নেতৃত্বে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বিগত ১৭ বছরের ইতিহাসে উপত্যকা অঞ্চলে এতবার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘিত হয়নি। কেন্দ্রের তরফ থেকে বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, জম্মুতে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ অগাস্টের মধ্যে ভারত এবং পাকিস্তানের আন্তর্জাতিক সীমান্তে ২৪২ বার ক্রস বর্ডার ফায়ারিং করা হয়েছে।

লোকসভার বাদল অধিবেশনে এ বিষয়ে বলতে গিয়ে ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক অবশ্য জানিয়েছেন, পাকিস্তান সীমান্তে অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করলেও প্রতিবারেই তাদের উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর সদস্যরা। তিনি আরো জানান, সীমান্তে যতবারই সীমান্ত চুক্তি লঙ্ঘিত হয়েছে, ততোবারই পাক প্রশাসনের কাছে তা জানানো হয়েছে। পাকিস্তানের সীমান্ত চুক্তি লঙ্ঘনে ভারতের প্রায় ৮ জন সেনা জওয়ান শহীদ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী।

এই ঘটনায় এপর্যন্ত আহত হয়েছেন আরো দুজন। পাশাপাশি, পাক গোলাগুলিবর্ষণে বেশ কয়েকজন ভারতীয় নারী এবং শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। গোলার আঘাতে ভেঙ্গে পড়েছে সীমান্তের বেশ কয়েকটি বাড়ি। তবে মার্চ মাসের শেষের দিকে কিছুদিন করোনা পরিস্থিতির জন্য সীমান্ত সংঘর্ষ বন্ধ রেখেছিল পাকিস্তান। চলতি বছরের জুন মাসের মধ্যেই ২৪৩২ বার সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লংঘন করেছে পাকিস্তান। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালেও প্রায় ২০০০ বার সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে পাকিস্তান।