সেনার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার, জম্মু-কাশ্মীর থেকে গ্রেফতার পাক গুপ্তচর

উপত্যকা অঞ্চলে পাকিস্তানি জঙ্গি বাহিনীর আনাগোনা অব্যাহত। তবে ভারতীয় সেনাবাহিনীর তৎপরতায় জম্বু-কাশ্মীর থেকে একের পর এক পাক জঙ্গী বাহিনীর সদস্যরা গ্রেফতার হচ্ছে। সম্প্রতি, জম্বু কাশ্মীরের সাম্বা এলাকা থেকে পাক গুপ্তচর বাহিনীর এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশ। ধৃত ওই সন্দেহভাজনের নাম কুলজিৎ কুমার। পাক গুপ্তচর সন্দেহে বুধবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সাম্বার SSP রাজেশ শর্মা জানালেন, ধৃত ওই যুবকের বয়স ২১ বছর। পাকিস্তানের আন্তর্জাতিক সীমান্ত লাগোয়া আওতাল কাটালান গ্রামের বাসিন্দা ওই সন্দেহভাজন যুবক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে ভারতীয় সীমানার বাইরে অজ্ঞাত পরিচয় এক সূত্রের কাছে তথ্য এবং ছবি পাচার করতো। এমনকি, তার ব্যাংক একাউন্টেও এ সংক্রান্ত বেশ কিছু টাকা লেনদেন হয়েছে বলে জানতে পেরেছে পুলিশ।

জম্বু-কাশ্মীরের এসএসপি আরো জানালেন, ২০১৮ সাল থেকে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থার হয়ে কাজ করছে কুলজিৎ। দেশের বেশ কয়েকটি সেতুর ছবি এবং অন্যান্য বেশ কয়েকটি নির্মাণ কার্যের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সীমান্ত পেরিয়ে পাচার করেছে এই যুবক। এ সম্পর্কে আরও তথ্য জানার জন্য বর্তমানে তাকে জেরা করছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের কাছ থেকে চারটি মোবাইল ফোন এবং বেশ কয়েকটি সিম উদ্ধার করা হয়েছে।

কুলজিৎ এর বিরুদ্ধে এনিমি অর্ডিন্যান্স অ্যাক্ট অনুসারে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশের অনুমান, সাম্বা অঞ্চলে সুরক্ষার জন্য নিযুক্ত ভারতীয় সেনাবাহিনীর তথ্য পাকিস্তানে পাচার করতো কুলজিৎ। উল্লেখ্য, বিগত প্রায় এক বছর ধরে উপত্যকা অঞ্চল থেকে একের পর এক জঙ্গী কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত অপরাধীদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ভারতীয় সেনাবাহিনী তৎপরতায় ইতিমধ্যে বহু জঙ্গী কার্যকলাপ রোখা সম্ভব হয়েছে।