অনলাইনে জ্বালানি তেলের ব্যবসা, মিলবে সরকারি সাহায্য, এক বছরেই হতে পারেন বিপুল টাকার মালিক

করোনার পরিস্থিতির পর থেকেই জ্বালানির দাম দেশে দারুন ভাবে বেড়ে চলেছে, আর সেই কারণেই সাধারণ মানুষের উঠেছে নাভিশ্বাস। যদি দেখা যায় প্রায় প্রতিদিনই তেল সংস্থাগুলি তেলের দাম বাড়িয়ে চলেছে, যার ফলে মাথায় হাত পরেছে সাধারণ মানুষের। কিন্তু ক্রেতার মাথায় হাত পড়লেও বিক্রেতাদের কিন্তু দারুণ লাভ। সময়ের সাথে সাথে এখন সবকিছুই পরিবর্তন ঘটছে,তাই আমরা যেমন বাড়িতে বসেই অনলাইনে অর্ডার করে হাতের কাছে সব পেয়ে যাচ্ছি তেমনভাবেই জ্বালানি তেলের ব্যবসা অনলাইনে শুরু করা যেতে পারে। আগে কথাটা শুনে অনেকে বিশ্বাস না হলেও, এটাই সত্যি। এই ব্যবসায় সরকারি সাহায্য থেকে শুরু করে বিভিন্ন তেল সংস্থাগুলোও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে।

আর এই ধরনের ব্যবসার কথা যখনই মাথায় আসে সবার প্রথমে যার নাম উঠে আসে ,সেটা হল পেপফুয়েল ডট কম (https://pepfuels.com/)। তাদের সূত্র ধরেই জানা যায় এই ব্যবসায় কতটা অগ্রসর হওয়া যায়, সময়ের সাথে সাথে। এই পেপফুয়েল সংস্হা সরকারের দ্বারা অনুমোদিত একটি স্টার্ট আপ। এখানে অংশিদারীত্ব করেছে নয়ডার টিকেন্দ্র, সন্দীপ ,প্রতীক। মোট কথা ইন্ডিয়ান অয়েলের সাথে থার্ড পার্টি হিসেবে অনলাইন বিজনেসের চুক্তি হয়েছে। যদি এই সংস্হার বার্ষিক আয় দেখা যায় তাহলে ১০০ কোটি টাকার ওপরে, কিন্তু প্রশ্ন একটাই পেট্রোল কেন সরবরাহ করছে না এই সংস্হা?

২০১৬ সাল পর্যন্ত অনলাইনে পেট্রোল বিক্রির অনুমতি ছিল না দেশে। আর বাধ্য হয়েই ডিজেল সরবরাহ করতে বাধ্য হয় সংস্হা। এখন এমন হয়েছে, যেখানে ক্রেতারা দারুণভাবে ইচ্ছুক এই অনলাইন পেট্রোল কেনার জন্য। তাই বর্তমানে ক্ষতির পরিমাণ তেমন একটা নেই বাজারে। মোট কথা সং্হা একেবারে বাজারে নামার আগে দারুণ ভাবে সমীক্ষা করেই নেমেছে, যেখানে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে অনলাইন জ্বালানী তেল সরবরাহ অ্যাপের প্রয়োজনীয়তা কতটুকু।