OMG: পরপর তিনদিন বাস ধর্মঘটের ডাক, ভুগতে হবে সাধারণ মানুষকে

আগামী ২৮ থেকে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত বেসরকারি মিনি বাস মালিকদের বিভিন্ন সংগঠন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন। মোটকথা ডিজেলের লাগাতার মূল্য বৃদ্ধি এবং জিএসটি বসানোর দাবিতে এই ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন তারা।স্বাভাবিক ভাবেই বোঝা যাচ্ছে বেসরকারি বাস মালিকরা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এই ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে টানা ৭২ ঘন্টা অর্থাৎ তিন দিন এই ধর্মঘট চলবে। বেসরকারি সংগঠনের মালিকরা দাবি করেছেন, কেন্দ্রীয় সরকার চাইলে ডিজেলের উপর থেকে বিভিন্ন কোর্স শেষ তুলে নিয়ে জিএসটি বসালে ডিজেলের দাম অনেকটাই কমবে।

আর এই ক্ষমতা কেবলমাত্র কেন্দ্রীয় সরকারের হাতেই রয়েছে। মোট পাঁচটি বাস সংগঠনের তরফ থেকে বেঙ্গল বাস সিন্ডিকেট, জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেট, ওয়েস্ট বেঙ্গল বাস-মিনিবাস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন, মিনিবাস কোঅর্ডিনেশন কমিটি এবং ইন্টার-ইন্ট্রা রিজিওন বাস সার্ভিস এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। তারা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে যে ধর্মঘটে নেমেছে তার জন্য রাজ্য সরকারের সহায়তা চেয়েছেন। তাদের দাবি লাগাতার ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি হয়ে চলেছে। কেন্দ্রীয় সরকার যদি ডিজেলের উপর বাস তুলে নিয়ে জিএসটি না বসায় তাহলে ফেব্রুয়ারির পর থেকে লাগাতার ধর্মঘট চলবে।

গতকালের ডিজেলের দাম যদি দেখা যায় লিটারপ্রতি ৭৮ টাকা ৯৬ পয়সা, তাই পাবলিক মিনিবাস সংগঠনের দাবী এই ডিজেলের দাম প্রায় ৩২ টাকা রয়েছে কেন্দ্রের শুল্ক। সাথে রাজ্য সরকারের অতিরিক্ত করো বিক্রয় করার রয়েছে ২০ শতাংশ ১৭%। এখানেই শেষ না রয়েছে রাজ্যের এক টাকা লিটার প্রতি সেস ও কেন্দ্রের দুই টাকা লিটার প্রতি সেস।কিন্তু এই সবকিছু উঠে গিয়ে যদি জিএসটি কর বসানো হয় ডিজেলের ওপরে তাহলে আগের থেকে অনেকটাই কমে যাবে ডিজেলের দাম। কারণ জিএসটির সর্বাধিক পরিমাণ ১৮%।