ভারতীয় ভূখণ্ড নিয়ে তৈরি মানচিত্র ভারত এবং রাষ্ট্রপুঞ্জে পাঠাচ্ছে নেপাল

যতই বিতর্ক চলুক দলের অভ্যন্তরে, ভারতীয় ভূখণ্ড আগ্রাসনের মনোভাব থেকে একচুলও সরতে রাজি নয় নেপাল সরকার। সম্প্রতি, ভারতের লিম্পিয়াধুরা, লিপুলেখ এবং কালাপানি এলাকাগুলি নেপালের নতুন সংশোধিত মানচিত্রে যোগ করে নেয় নেপাল প্রশাসন। এবার, ভারতসহ আন্তর্জাতিক মহলে সেই মানচিত্র পাঠাতে চলেছে নেপাল।

লিম্পিয়াধুরা, লিপুলেখ এবং কালাপানি এলাকাগুলি নিজেদের বলে দাবি করে, নেপালের নতুন মানচিত্রে এলাকাগুলিকে ঠাঁই দিয়ে ইতিমধ্যেই নেপালের সংসদে নতুন মানচিত্র পাশ করেছে প্রশাসন। নেপালের এক মন্ত্রী জানালেন, ইতিমধ্যেই ইংরেজি ভাষাতে নেপালের নতুন মানচিত্রের চার হাজার কপি ছাপিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের কাছে পাঠাবার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে নেপালের ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট দপ্তরকে।

মন্ত্রী জানিয়েছেন, শুধু নেপালের বাসিন্দাদের মধ্যেই প্রায় ২৫ হাজার নতুন মানচিত্র বিলি করেছে নেপাল প্রশাসন। প্রতিটি মানচিত্রের দাম ধার্য করা হয়েছে ৫০ নেপালি টাকা। বিশিষ্ট সংবাদ সংস্থা এএনআই এ নেপালের ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট দফতরের মন্ত্রী পদ্ম আরিয়াল  জানালেন, আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই নেপালের সংশোধিত মানচিত্রটি ভারতসহ রাষ্ট্রপুঞ্জের বিভিন্ন এজেন্সিতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, ভারতীয় ভূখণ্ড আগ্রাসনের নেপালের এই প্রচেষ্টা ভালো চোখে দেখছে না ভারত। চীনের মতোই ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করার চেষ্টা করছে নেপাল। লিম্পিয়াধুরা, লিপুলেখ এবং কালাপানি এলাকা সম্বন্ধে নেপালের দাবি মানতে নারাজ ভারত। ভারতের দাবি, বিতর্কিত এলাকাগুলি নিয়ে নেপালের দাবি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।