মহামারীর মহানগরে পাশে দাঁড়িয়েছে কলকাতা পুলিশ, প্লাজমা দান করে বাঁচিয়েছে ১০২ রোগীর প্রাণ

সম্প্রতি করোনা রোগের প্রতিষেধক গণহারে দেশবাসীকে প্রদানের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এর আগে অবশ্য যতদিন টিকা প্রদানের অনুমোদন মেলেনি ততদিন চিকিৎসকেরা তাদের সাধ্যমতো ঔষধ পত্রের মাধ্যমেই রোগীদের চিকিৎসা করেছেন। তবে করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপি কিন্তু বেশ ভালো ফল দিয়েছে। প্লাজমা থেরাপির মাধ্যমে অনেক মুর্মূষু মানুষকে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে।

তবে এই প্লাজমা দেবেন কে? রাজ্যের সেই দুশ্চিন্তার অবসান ঘটিয়েছেন কলকাতা পুলিশ। সূত্রের খবর, কলকাতা পুলিশের কর্মী এবং আধিকারিকরা করোনা পর্বে অন্তত ১০২ জনকে প্লাজমা প্রদান করেছেন। লালবাজার সূত্রে খবর, করোনা পর্বের প্রথম পর্যায় কলকাতা পুলিশ যে হারে করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়ছিলেন, এখন সেই হার অনেকটাই কমে এসেছে। কলকাতা পুলিশের শরীরে করোনা প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।

তাই তাদের সেই আন্টিবডি সমৃদ্ধ প্লাজমা বহু করোনা আক্রান্ত রোগীকে সুস্থ করে তুলছে। বিশিষ্ট সূত্রে খবর, এই মুহূর্তে কলকাতা পুলিশের অন্তত ৩,৩৫০ জনের কিছু কম কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তবে তাদের মধ্যে দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যা অনেকটাই কমেছে। দিনে গড়ে অন্তত পাঁচ জনের বেশি পুলিশকর্মী অথবা আধিকারিক এখন করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন না বলেই জানানো হয়েছে।

চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহেই প্লাজমা প্রদানকারী পুলিশের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছে। গত মঙ্গলবার পর্যন্ত ১০২ জন পুলিশ কর্মী প্লাজমা প্রদান করেছেন বলে জানানো হয়েছে। কলকাতা পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, কলকাতা পুলিশের সদস্যরা প্লাজমা প্রদানের জন্য তৈরি। ভবিষ্যতেও তারা এই কাজ চালিয়ে যাবেন। মোটকথা, রাজ্যের প্রশাসনিক রক্ষক এখন চিকিৎসা ক্ষেত্রেও রক্ষাকর্তা হিসেবেই করোনা রোগীদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন।