ভোটের পরে কি তৃণমূলে যেতে আগ্রহী? জল্পনা উস্কে দিলেন অধীর চৌধুরী

একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজ্য রাজনীতি উত্তাল হয়ে রয়েছে। এই মহাযুদ্ধে বিজেপি এবং তৃণমূল কার্যত সম্মুখ সমরে। উভয় পক্ষই একে অপরকে এক ইঞ্চি জমিও ছেড়ে দিতে নারাজ। তৃণমূলের থেকে বাংলার শাসন ক্ষমতা ছিনিয়ে নিতে চাইছে বিজেপি। তবে বিজেপির সেই পরিকল্পনা সফল হতে দিতে রাজি নয় রাজ্য শাসকদল। একুশের লড়াইয়ে তৃণমূল যদি দুর্বল হয়ে পড়ে তাহলে কংগ্রেস কি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে এগিয়ে আসবে?

একুশের লড়াইয়ে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে জোর লড়াই বেঁধেছে। অপরদিকে কংগ্রেস-সিপিএম-আইএসএফ জোটও লড়াইয়ের ময়দানে উপস্থিত। এহেন পরিস্থিতিতে সম্প্রতি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর একটি মন্তব্য রাজনৈতিক সম্ভাবনার কথা উসকে দিয়েছে। সংবাদমাধ্যমের সামনে তিনি বলেন, “রাজনীতি আসলে সম্ভাবনার শিল্প।”

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে জোর “সম্ভাবনা” দেখছে রাজনৈতিক মহল। তবে তৃণমূল অবশ্য আপাতত এই সম্ভাবনাকে নস্যাৎ করে দিচ্ছে। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূলের দাবি, তৃণমূল একাই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে।

তৃণমূলের কটাক্ষ, “রাজনৈতিক দেউলিয়াপনা” থেকেই এমন মন্তব্য করেছেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। ঠিক কী বলেছেন অধীর? অধীর রঞ্জন চৌধুরীর বক্তব্য অনুযায়ী, একুশের লড়াই শেষে সংযুক্ত মোর্চা যাতে নবান্ন দখল করতে পারে আপাতত সেই উদ্দেশ্যে লড়াই চালাচ্ছেন তারা। লড়াই শেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হয়তো নিজেই নবান্নে অস্তিত্ব ধরে রাখার উদ্দেশ্যে সংযুক্ত মোর্চার সঙ্গে জোট বাঁধতে পারেন।