সোশ্যাল মিডিয়া অপছন্দ করা পাত্রী চাই, বিজ্ঞাপনে হৈচৈ বিয়ের বাজারে, কটাক্ষের শিকার বাঙালি যুবক

খবরের কাগজে পাত্র-পাত্রী বিজ্ঞাপন আমরা পাত্র পাত্রী খোঁজার জন্য বিভিন্ন চাহিদা দেখে থাকি মানুষের। তাদের জন্য যেমন দরকার নিজস্ব বাড়ি গাড়ি সরকারি চাকরি, তেমনই পাত্রীর জন্য পাত্রের বাড়ি থেকে চাই সুন্দরী ফর্সা এবং গৃহকর্মী নিপুনা। এ রকম নানা রকম বৈশিষ্ট্যের কথা আমরা জেনে থাকি। এই নিয়ে বহু মানুষের মধ্যে বহুবার তর্কাতর্কি হয়েছে। তবে সদ্য ভাইরাল হবে একটি বিজ্ঞাপনে পাত্রের চাহিদা দেখে রীতিমত অবাক হয়ে গেছে সকলে। বিজ্ঞাপনে পাত্রের চাহিদা একেবারেই অন্যদের থেকে আলাদা। এই বিজ্ঞাপন এখন সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল। যে দেখছে সে অবাক হয়ে গেছে।

হুগলির কামারপুকুর এর বাসিন্দা বছর ৩৭ বছরের আইনজীবী বিয়ে করবেন বলে ঠিক করেন। কিন্তু বিয়ে করবেন বলেই তো আর বিয়ে হচ্ছে না। এখন ভালো মেয়ে পাওয়া দায়। তাই শেষমেষ পাত্রী খোঁজার জন্য বিজ্ঞাপন দেন তিনি খবরের কাগজে। কিন্তু তার বিজ্ঞাপন এর বয়ান একেবারেই ব্যতিক্রমী। তিনি বিজ্ঞাপনে লিখেছেন,”আমি একেবারেই নেশাগ্রস্ত নই। হাই কোর্ট আইনজীবী। আমার একটি গাড়ি আছে। বাবা মা জীবিত। আমি কামারপুকুরের বাসিন্দা। আমার কোন আলাদা চাহিদা নেই। কিন্তু দাবি একটাই, পাত্রী যেন কোনভাবে সোশ্যাল মিডিয়াতে আকৃষ্ট না হয়”।

বিজ্ঞাপনটি টুইট করেন আইএএস আধিকারিক নিতিন স্যাঙ্গোয়ান। তিনি বিজ্ঞাপনটির একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করেছেন। তাটুয়েদ নিমেষে ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এরপরই এই পোস্ট দেখে অনেকে অনেক রকম কমেন্ট করতে শুরু করেন। কেউ কেউ এই চিন্তাধারার সাথে সহমত পোষণ করেছেন। আবার অনেকে ওই যুবককে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আগামী জীবনের জন্য। তবে একদিন নেটিজেন এই বিজ্ঞাপন দেখে রীতিমতো রেগে আগুন।

তাদের মতে,যেখানে বর্তমান যুগ সোশ্যাল মিডিয়ার সঙ্গে তালে তাল মিলিয়ে চলছে।কোনভাবেই এক মুহূর্তের জন্যও সোশ্যাল মিডিয়ায় সঙ্গে বিচ্ছেদের কথা মানুষ ভাবতে পারেন না।সেখানে একজন যুবক কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়াতে বুদ না হওয়া পাত্রী খুঁজতে পারেন, কে নিয়ে প্রশ্ন করেছেন অনেকে।তবে অনেকেরই মত, সোশ্যাল মিডিয়াতে আকৃষ্ট হওয়ার কারণে এর আগে বিয়ে ভেঙে গেছে বহু মানুষের।তাই এই যুবকের এহেন চিন্তাভাবনা একেবারেই সঠিক বলে মনে করেছেন অনেক নেটিজেন।