জোড়া ঘূর্ণাবর্তের জেরে বিভিন্ন জেলায় ভারী বৃষ্টি, সতর্ক করল হাওয়া অফিস

আসলে এই নতুন মাসের শুরু থেকেই দেখা যাচ্ছে তাপমাত্রার চরম নির্দশন, সাথে দেখা যাচ্ছে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি। সব মিলিয়ে একেবারে হুলুস্থুল কান্ড। এখন রাজ্যের মানুষ বিশেষ করে দক্ষিণবঙ্গের মানুষ অস্বস্তির মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। আর সেই কারণেই আরও অবস্হা খারাপ রাজ্যবাসীর। দেখা যাচ্ছে এরই মধ্যে আবার অনেক জায়গায় ভারী বৃষ্টি। সেই কারণে অনেক জায়গায় জল পর্যন্ত জমে গেছে। আজ সকাল থেকেই কলকাতার আকাশ ছিল মেঘলা আর সেই কারণেই দেখা যাচ্ছিল ফের শহর জুড়ে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি ও ভ্যাপসা গরম।

কিন্তু তাপমাত্রার কথা বলতে গেলে অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে রাজ্যে। আজ সকালে কলকাতার স্বাভাবিক ছিল ২৯ ডিগ্রীর ঘরে। এখন ভয় একটাই পূবালী হাওয়ার সাথে পশ্চিমী ঝঞ্ঝার সংঘাত। আর এরফলেই অসম পশ্চিমবঙ্গের ওপরে একটা ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। এখন মৌসুমী অক্ষরেখা বিরাজ করছে হিমালয়ের পাদদেশ পর্যন্ত। গয়া, ফারাক্কা, মনিপুর পর্যন্ত বিস্তৃত।আপাতত বৃষ্টির পরিমাণ থাকবে রাজ্যে, কিন্তু এরপরেই শনিবার রবিবার উত্তরবঙ্গের সাথে দক্ষিণবঙ্গের বৃষ্টির পরিমাণ‌‌‌ বাড়বে।

আজ কলকাতার তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৩০ ডিগ্রী সেলসিয়াস ও সর্বনিম্ন ২৬ ডিগ্রীর ঘরে, এদিকে এখন বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ অনেকটাই, সর্বোচ্চ ৯৭% র ঘরে। অসম, সহ উত্তর পূর্ব ভারতে একটা বিশাল প্রভাব পরবে বৃষ্টির। আর সেই কারণেই আগামী দিন গুলোতে সতর্ক করেছে। এদিকে এদিকে আগামী কয়েকদিন বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি চলবে দক্ষিণবঙ্গে সাথে উত্তরবঙ্গেও। তাছাড়া উত্তর পশ্চিম ভারতেও একই অবস্হা, দক্ষিণ ভারতও বাদ যাচ্ছেনা ভারী বৃষ্টির হাত থেকে তামিলনাড়ু, কর্ণাটক।