শরীরের বিভিন্ন জায়গায় হাত বুলোচ্ছিলো, MeToo নিয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন ববিতা জী

যৌন হেনস্থার শিকার প্রত্যেক মেয়েদেরই হতে হয়। কখনো বাড়িতে কখনও বা বাড়ির বাইরে প্রতিনিয়ত অস্বস্তিকর স্পর্শের অনুভূতি তারা পেতে থাকেন।

নিজের জীবনের তেমনই একটি অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করলেন মুনমুন দত্ত যিনি অভিনয় করেছেন তারাক মেহেতাকা উলটা চশমা ধারাবাহিকে।

যিনি ববিতার চরিত্রে অভিনয় করে জনপ্রিয়তার শিখরে চলে গিয়েছিলেন। সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করে জানালেন কিছু কথা।

নিজের জীবনের কিছু অজানা কথা তিনি শেয়ার করলেন সকলের সাথে। সকলকে জানালেন নিজের তিক্ততম অভিজ্ঞতার কথা। ছোটবেলায় যে কাকে বাবা বলে মনে করতেন, একটু বড় হলেই টের পেলেন যে তিনি অবাধে তার শরীরে হাত বোলাতে ভালোবাসেন।

কোনভাবেই কাউকে কিছু বলতে পারতেন না তিনি। কাকা আগে থেকেই সাবধান করে দিয়েছিল যে, বাইরের কাক-পক্ষীকে যদি একথা টের পায় তাহলে তাকে দেখে নেবে সে।

এরপর যে দাদাকে জন্মের সময় থেকে দাদা বলে ডেকে এসেছে, সেই তুত দাদা অবলীলায় তার স্তনে হাত বোলাতে পারতেন। সবকিছুই এত সাধারণভাবে হতো যে মনে হতো তিনি এই সব মানুষের ব্যক্তিগত অধিকার। এরপর অভিজ্ঞতা আরও তিক্ত হল।

যে শিক্ষককে নিজের ভগবানের জায়গায় তিনি বসিয়েছিলেন, যাকে রাখি পড়াতেন দাদা হিসাবে, যখন বুঝলেন তার নজর একেবারেই অন্যরকম। তার শিক্ষক অবলীলায় তার যৌনাঙ্গে হাত বোলাতেন। রীতিমতো থাপ্পর মারতেন তার স্তনে।

এই সমস্ত ঘটনা যেন ধীরে ধীরে তাকে পরিবর্তন করে দিয়েছিল। মুনমুন বুঝতে পেরেছিলেন যে, পৃথিবীতে ভালো মানুষের সংখ্যা খুবই কম। সবথেকে কঠিন বাস্তব হল যে, আমাদের বাড়ির খুব কাছের মানুষরাই আমাদের সব থেকে বড় শত্রু।

মিটু মোমেন্ট যখন হয়েছিল তখন অভিনেত্রী মনে করেছিলেন যে, তিনি সকলের সামনে তার মনের কথা জানাবেন। কিন্তু তারপরে নিজের পরিবারের কথা ভেবে সেই সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে এসেছিলেন তিনি। তবে এ কথা জানাতে ভোলেননি তিনি, আজ তার সঙ্গে কোনো রকম খারাপ ব্যবহার করলে তাকে সকলের সামনে থাপ্পড় মারতে বিন্দুমাত্র চিন্তা করবেন না তিনি।