পূরণ হয়েছে স্বপ্ন, মেয়ে এখন বড়ো পুলিশ অফিসার, স্যালুট পুলিশকর্মী বাবার, কুর্নিশ সোশ্যাল মিডিয়ার

সন্তানকে ঘিরেই বাবা-মার সকল স্বপ্ন ঘোরাফেরা করে। নিজের জীবনের অপূর্ণ ইচ্ছে, আশা অভিভাবকেরা সন্তানের মাধ্যমেই পূরণ করে নিতে চান। নিজের সন্তানকে নিয়ে প্রত্যেক অভিভাবককেরই উচ্চাশা থাকে। তা কিছুমাত্র দোষের নয়। সন্তান যখন বাবা-মার অবস্থা ছাপিয়ে আরও উচ্চ অবস্থান দখল করেন তখন স্বভাবতই মা-বাবার থেকে বেশি খুশি আর কেউ হন না। কারণ একমাত্র এই সম্পর্কের মধ্যেই কোনো হিংসা, বিদ্বেষজনিত মনোভাব লুকিয়ে থাকতে পারে না।

এরকমই একটি দৃশ্যের সাক্ষী হলো নেট দুনিয়া। অন্ধ্রপ্রদেশের তিরুপতির বাসিন্দা ওয়াই শ্যামসুন্দর হলেন একজন সাধারন পুলিশ ইনসপেক্টার। তার মেয়ে হলেন জেস্সি প্রশান্তি। আর পাঁচটা সাধারণ অভিভাবকের মতো শ্যামসুন্দরও চেয়ে ছিলেন তার মেয়ে একদিন তার মুখ উজ্জ্বল করবেন। জেস্সি ভবিষ্যতে কোনো বড় জায়গায় পৌঁছবেন, এই ছিল তার আশা। সেই মতো মেয়েকে তৈরিও করেছিলেন তিনি। অবশেষে তার আশা পূরণ হলো।

পুলিশ ইনসপেক্টার ওয়াই শ্যামসুন্দরের মেয়ে জেস্সি প্রশান্তি আজ তারই বিভাগে অফিসার পদ পেয়েছেন। মেয়ের এই সাফল্যে গর্বিত বাবা মেয়েকে স্যালুট করছেন। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন ছবিই ভেসে উঠলো। নেপথ্যে, অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিশ। বাবা মেয়ের এমন আবেগঘন মুহূর্তটিকে তারাই ক্যামেরাবন্দি করে টুইটারে আপলোড করেছেন। অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, “সার্কেল ইন্সপেক্টর বাবা আজ তার ডেপুটি সুপার মেয়েকে স্যালুট জানাচ্ছেন!”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ৪ঠা জানুয়ারি থেকে শুরু করে ৭ই জানুয়ারি পর্যন্ত অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিশের একটি বিশেষ সম্মেলন চলছে। সেই সম্মেলনেই মেয়েকে দেখে স্যালুট জানিয়েছেন শ্যামসুন্দরম। মেয়েও অবশ্য পাল্টা স্যালুট জানিয়েছেন বাবাকে। কর্ম-কর্তব্যই যেন তাদের এক সূত্রে বেঁধে রেখেছে! অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিশের সৌজন্যে এমন আবেগঘন মুহূর্তের সাক্ষী থাকলো সারা দেশ।