হৃদরোগে আক্রান্ত হতেই ট্রোল, সৌরভের বিজ্ঞাপন তুলে নিলো ফরচুন

সোশ্যাল মিডিয়া হোক কিংবা সংবাদমাধ্যম, লাইমলাইট জুড়ে এখন শুধু সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ই রয়েছেন। সম্প্রতি মাইল্ড হার্ট অ্যাটাকের কারণে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় তাকে। ক্রিকেট দুনিয়ার মহারাজের এহেন শারীরিক অবনতিতে স্বভাবতই উদ্বেগে ভুগছেন অনুরাগীরা। তবে এরই মধ্যে আবার তার এই অসুস্থতাকে কেন্দ্র করেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল-মিমের বন্যা বয়ে যাচ্ছে। নেপথ্যে, ফরচুন রাইস ব্র্যান অয়েলের বিজ্ঞাপন!

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এখন ফরচুন রাইস ব্র্যান অয়েলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর। প্রায়শই বিভিন্ন প্লাটফর্মে এই ভোজ্য তেলের বিজ্ঞাপন দিতে দেখা যায় তাকে। সেখানে দাবি করা হয় ফরচুন কোম্পানির এই রাইস ব্র্যান অয়েল সেবন করলে হৃদপিণ্ড ভালো থাকবে। কিন্তু গত শনিবার সেই ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরই স্বয়ং যখন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়লেন তখন থেকেই বিজ্ঞাপনের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে থাকে বিভিন্ন মহলে।

চরম বিতর্কের মুখে পড়ে শেষমেষ ফরচুন তেলের সমস্ত বিজ্ঞাপনের উপর আপাতত নিষেধাজ্ঞা জারি হলো। বিশিষ্ট সংবাদমাধ্যম “দ্য ইকোনমিক টাইমস” এর তরফ থেকে দাবি করা হচ্ছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল এবং মিমের মুখে পড়ে শেষমেষ ফরচুন তেলের সকল বিজ্ঞাপন উঠিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আদানি উইলমার। বিশেষত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে মডেল করে যে বিজ্ঞাপনগুলি তৈরি করা হয়েছিল, সেগুলিকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের অসুস্থতার খবর পেয়ে এই বিজ্ঞাপন নিয়ে তাকে খোঁচা দিয়েছেন বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য কীর্তি আজাদ। ফরচুন তেলের বিজ্ঞাপন উদ্ধৃত করে একটি পোস্ট করেন তিনি যে বিজ্ঞাপনের মূল বক্তব্য ছিল, ৪০ বছরের উর্ধ্বে এই ভোজ্য তেল সেবন করলে হৃদপিণ্ড ভালো থাকবে। সেই প্রসঙ্গে তিনি লিখেছেন, সব সময় পরীক্ষা করেই সকল পণ্যের প্রচার চালানো উচিত। সেইসঙ্গে “দাদা”কে তিনি সর্বদা সচেতন এবং সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।