ঠিক কোন সময়ে ভাত খেলে স্বা’স্থ্যে’র পক্ষে ভালো! বি’শে’ষ’জ্ঞ’রা কি বলছেন?

যারা ডায়েট করছেন, অতিরিক্ত স্বাস্থ্য সচেতন হোন, তারা সাধারনত ভাত খাওয়াটা এড়িয়ে চলেন। যাদের শারীরিক ওজন বেশি হয়, তারা সাধারণত রাতের দিকে ভাত খেতে চান না। তবে ভাতের মধ্যে কিন্তু বেশ কিছু পুষ্টিগুণ থাকে যা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। পাশাপাশি সুস্বাস্থ্যের জন্য ভাত কিন্তু অন্যান্য যে কোনো খাদ্যবস্তুর থেকে অনেকাংশে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

ভাতের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। যে ফাইবার অন্ত্রকে ভালো রাখতে সাহায্য করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। পাশাপাশি হজমের সমস্যা দূর করে। ভারতের মধ্যে কোনো কোলেস্টেরল নেই। এরমধ্যে ফ্যাট বলতে গেলে একেবারেই নেই। এর ক্যালরি মূল্যও কিন্তু গমের তুলনায় অনেকাংশে কম। তাই ডায়েটে ভাত একেবারেই বাদ দেওয়া মোটেই বৈজ্ঞানিক নয়।

পুষ্টি বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, রাতের বেলা ভাত খাওয়াতে দোষের কিছু নেই। ভাত খেলে ঘুম ভালো হয়। ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করে ভাত। তবে শারীরিক ওজন যদি বেশি হয় তাহলে রাতের চেয়ে বিকেলের দিকেই ভাত খেয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। কারণ বিকেলের দিকে শরীরের বিপাকীয় কার্যাবলী খুব ভালো হয়।

তবে যারা ওজন কমাতে চাইছেন তাদের ভাত কম খাওয়াটাই ভালো। কারণ ভাতের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট থাকে যা ওজন বৃদ্ধির জন্য দায়ী। কিন্তু ভাতের মধ্যে যে কার্বোহাইড্রেট থাকে তা আসলে আমাদের শক্তি যোগায়। ভাত শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে। লিভারকে টক্সিনমুক্ত রাখতে ভাত খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।